বাঘায় পাল্টাপাল্টি হামলা ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগে দুই পক্ষের ৬ জনসহ আটক ৯

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় পাল্টাপাল্টি হামলা ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগে দুই পক্ষের ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা ও ওয়ান্টেভূক্ত ৩ জন আসামীসহ ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাদের আটক করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
জানা যায়, মঙ্গলবার ১৯ মে (বুধবার) রাত ৮টার দিকে আড়ানী পৌরসভার কাউন্সিলর রাশিদুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে ১৫ থেকে ২০ জনের একটি দল চাইনিজ কুড়াল, লোহার রড, হাতুরি, বাঁশের লাঠি, দেশীয় অস্ত্র নিয়ে নুরনগর (খয়েরমিল) গ্রামের হিরো উদ্দিনের বাড়িতে হামলা করে। বাড়িতে ঢুকেই তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। তাদের হামলায় বাড়ির লোকজন ভয়ে ঘরের দরজা আটকে দিলে হামলাকারিরা দরজা ভেঙে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে এলোপাথারী ভাবে মারপিট ও ভাঙচুর করতে থাকে।
এ সময় বাড়ির সামনের প্রাচীর, ঘরের দরজা, টিভি, ফ্রিজসহ বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র ভাঙচুর করে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে। এছাড়াও হামলাকারিরা বাড়ির সোকেচ ও আলমারির তালা ভেঙ্গে নগদ ২ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা, ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা মুল্যের স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় বাড়ির লোকজনের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে প্রান নাশের হুমকি দিয়ে হামলাকারিরা চলে যায়।
এ বিষয়ে হিরো উদ্দিন বাদি হয়ে কাউন্সিলর লিটনকে ১ নম্বর আসামী করে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাঘা থানার পুলিশ বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে নাহিদ হোসেন, আশিক আহম্মেদ ও সাজু হোসেনকে আটক করে।
অপর দিকে উপজেলার আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলাম রব্বেলের মেয়ে (১৫) প্রাইভেট পড়ার নাম করে রোববার (১৬ মে) দুপুরে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে তাকে খোঁজ করে না পেয়ে নুরনগর (খয়েরমিল) গ্রামের হিরো উদ্দিনের ছেলে তানভির আহম্মেদ রুহানকে সন্দেহ করে। বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হিরো উদ্দিনের বাড়িতে গেলে মারপিট করা হয়েছে।
এই ঘটনায় আড়ানী পৌরসভার কাউন্সিলর রাশিদুজ্জামান লিটনের ভাই জহুরুল ইসলাম রব্বেল বাদি হয়ে হিরো উদ্দিনের বিরুদ্ধে আরেকটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে ফয়সাল আহম্মেদ, মিঠন হোসেন, বিপ্লব হোসেনকে পুলিশ আটক করে।
এ বিষয়ে হিরো উদ্দিন বলেন, কাউন্সিলর লিটন মধ্যযুগীয় কায়দায় আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাটসহ মারাত্বক জখম করে চলে যায়। লিটনের ভয়ে বাড়িঘরে থাকতে পারছিনা, দোকানপাট খুলতে পারছিনা। আমরা চরম নিরাপত্বাহীনতায় আছি।
এ বিষয়ে আড়ানী পৌরসভার কাউন্সিলর রাশিদুজ্জামান লিটন বলেন, আমার ভাইয়ের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে (নবম শ্রেনী) নিখোঁজ হয়েছেন। লোকমুখে জানতে পেয়েছি হিরো’র ছেলে তাকে নিয়ে গেছে। এ বিষয়ে হিরোর বাড়িতে আমার দুই/এক লোক খোঁজ নিতে গেলে তারা অকথ্য ভাষায় গালাগালাজ করেন এবং মারধর করেন। এ ঘটনার সঙ্গে আমার কোনও সম্পৃক্ততা নেই। তারা নিজেদের দোষ ঢাকতে আমার ও আমার লোকজনের নামে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন।
এদিকে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ও বিভিন্ন মামলার ওয়ান্টেভূক্ত ৩ জন আসামীকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো-শরিফুল ইসলাম বাবু, সেলিম মেল্লা ও গিয়াস উদ্দিন।
বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *