আড়ানীতে নির্বাচনী ওয়াদা বাস্তবায়ন করে প্রসংশিত হচ্ছেন মুক্তার আলী

লালন উদ্দীন,বাঘা : প্রথমে ইউপি সদস্য,এরপর কাউন্সিলর,অত:পর ভারপ্রাপ্ত মেয়র, সর্বশেষ বিপুল ভোটের ব্যাবধানে পর-পর দুইবার মেয়র নির্বাচিত হন মুক্তার আলী। এ ভাবে এক টানা ২১ বছর জনপ্রতিনিধিত্ব চলছে মুক্তার আলীর। তিনি চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারী নির্বাচন পূর্ব সমাবেশে ওয়াদা করে ছিলেন, “আমি পৌর পিতা নয়,সেবক হতে চাই। আর সেই লক্ষে পৌর এলাকায় নানা উন্নয়ন মুখি কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। সর্বশেষ শুক্রবার(২১-মে)আড়ানী পৌর বাজারে রড, সিমেন্ট,পাথর মিশ্রনের মধ্য দিয়ে ১ কোটি ১৪ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ৭ শ’ মিটার রাস্তার শুভ উদ্বোধন করে ব্যবসায়ীদের দাবি পুরণ করেছেন মুক্তার আলী।
সকাল সাড়ে ৯ টায় আড়ানী বাজারের পশ্চিম পার্শ্বের এ রাস্তা উদ্বোধনের সময় তার পাশে ছিলেন পৌর সভার সকল কাউন্সিলর, আড়ানী বাজার বনিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্প্রাদক যথা ক্রমে- শ্রী-সনত কুমার এবং আব্দুল আজিজ, আড়ানী বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক আলহাজ শামিম সরকার, শিক্ষক রাম গোপাল সাহা, নয়ন আলী ও জিন্নাহ-সহ বাজারের স্থায়ী ব্যবসায়ী বৃন্দ। এর আগে গত বছর মুক্তার আলী আড়ানী বাজারের পূর্ব এবং উত্তর পাশ দিয়ে তাঁর প্রিয় রাজনৈতিক নেতা ও বর্তমান সরকারের মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের মাধ্যমে অনুরুপ একটি রাস্তার শুভ উদ্বোধন করান ।
আড়ানী বাজার কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন, মুক্তার আলী পৌর সভার দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে আমরা অত্যান্ত ভাল আছি। আর যাই হোক, আমাদের কোন কিছুতে চাঁদা দিতে হয় না। তিনি বাজারের উন্নয়নে যা কিছু করনীয় তা ক্রমান্বয়ে করে যাচ্ছেন। আমরা ব্যবসায়ী মহল তাঁর প্রতি কৃতঙ্গ।
এদিকে রাস্তা উদ্বোধন কালে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক সাক্ষাত কারে মুক্তার আলী বলেন, দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে চলেছে। আমাদের প্রাণপ্রিয় নেতা স্থানীয় সাংসদ শাহরিয়ার আলম তাঁর নির্বাচনী এলাকা (চারঘাট-বাঘায়) অভুত পূর্ব উন্নয়ন করে চলেছেন।
অপর দিকে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী বাংলাদেশকে ২০৪১ সাল নাগাদ একটি উন্নত সোনার বাংলা গড়ার রূপকল্প হাতে নিয়েছেন। সে লক্ষে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে তিনি মাত্র ১২ বছরের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের গন্ডি পেরিয়ে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছেন । আমরা সেই লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি। যা বিগত কোন সরকার পারেননি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *