বাঘায় পালিয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকা দুই পরিবারের সংঘর্ষে আহত -১৩

বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় প্রেমের টানে বাড়ি থেকে পালিয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকা। আর এ ঘটনার জের ধরে দুই পরিবারের দ্বন্দ্ব ও সংঘর্ষে আহত হয়েছে ১৩ জন। মঙ্গলবার (১৮ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে উপজেলার আড়ানী পৌরসভার নুরনগর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলাম রব্বেলের মেয়ে (১৫) প্রাইভেট পড়ার নাম করে রোববার (১৬ মে) দুপুরে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে তাকে খোঁজ করে না পেয়ে নুরনগর (খয়েরমিল) গ্রামের হিরো উদ্দিনের ছেলে তানভির আহম্মেদ রুহানকে সন্দেহ করে মেয়ের পরিবার। ঘটনার এক পর্যায় বিভিন্ন মাধ্যমে তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পারে উভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক থাকার সূত্র ধরে তারা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।
বিষয়টি নিয়ে মেয়ের পরিবারের লোকজন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হিরো উদ্দিনের বাড়িতে যায়। এ সময় উভয়ের মধ্যে কথা কাটা-কাটি এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জহুরুল ইসলাম রব্বেলের পক্ষে আবদুল করিম প্রামানিক (৫৫), ইকবাল হোসেন (২৮), সানোরা বেগম (৬০), রফিকুল ইসলাম (৪০), নাহিদ হোসেন (২৫), ও লালন উদ্দিন (৪৫) আহত হয়।
অপর দিকে হিরো উদ্দিনের পক্ষে রবিউল ইসলাম (৩৪), রুমেল আলী (২২), রুবেল আলী (২৫)শাওন আলী (২২),সাজেদুল ইসলাম (৩৮), আলাউদ্দিন (৩৫) আহত হয়। আহতদের মধ্যে অধিকাংশ জনকে স্থানীয় বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পার্শ্ববর্তী পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে হিরো উদ্দিন বলেন, ছেলে-মেয়ের মধ্যে সম্পর্ক আছে এমনটি শুনেছি। তবে তারা কথায় আছে সেটা জানিনা। তারপরও আমাকে বারবার রাস্তাঘাটে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এক পর্যায়ে তারা আমার বাড়িতে এসে হামলা চালিয়ে আমাদের লোকজনকে মারপিট করেছে।
অপর দিকে জহুরুল ইসলাম রব্বেল বলেন, মেয়ে কথায় আছে তারা জানে। কিন্তু কোনমতে স্বীকার করছে না। তাই আমরা তার বাড়িতে গিয়ে ছিলাম। এ সময় তার লোকজন আমাদের উপর হামলা করায় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় তৃপলনাইন(৯৯৯) থেকে ফোন পেয়ে ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠিয়ে ছিলাম। পরদিন বুধবার পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *