পারিবারিক সম্পর্ক নাপিত-মালি-কসাই -কাঠমিস্ত্রিকে চাকরি দিয়েছেন রাবি ভিসি

রাজশাহী প্রতিনিধি : -মেয়াদের শেষ দিনে ক্যাম্পাস ত্যাগের আগে অ্যাডহকে ১৪১ জনকে নিয়োগ দিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য বিদায়ী উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ধরনের নিয়োগের ওপর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা উপেক্ষা করেই গণনিয়োগ দিয়েছেন তিনি।
নিয়োগপ্রাপ্তদের তালিকায় রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের স্বজন, ছাত্রলীগের সাবেক-বর্তমান নেতাকর্মী ও সাংবাদিক। এমনকি পারিবারিক নাপিত, মালি ও কাঠমিস্ত্রিকেও চাকরি দিয়েছেন তিনি।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নিয়োগের তালিকায় ১৪ নম্বরে থাকা শামসুল আলম দীর্ঘদিন ধরে উপাচার্য আব্দুস সোবহান ও তার পরিবারের সদস্যদের চুল কাটতেন। তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্টুয়ার্ড শাখায় নিরাপত্তা প্রহরী পদে চাকরি দেওয়া হয়েছে।
নিয়োগের তালিকায় ১৩ নম্বরে থাকা আব্দুস সামাদ রাজন পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। তার বাড়ি কাজলার ধরমপুর এলাকায়। তিনি উপাচার্যের ব্যক্তিগত ফার্নিচার বানিয়ে দিতেন। তাকে প্রকৌশল দফতর শাখায় কাঠমিস্ত্রি পদে চাকরি দিয়েছেন উপাচার্য।
জানা গেছে, উপাচার্যের বাসভবনে মালির কাজ করতেন সাইফুল ইসলাম। তার স্ত্রী মিনু খাতুন ওই বাসভবনে গৃহপরিচারিকা ছিলেন। তাকে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে আয়া পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিয়োগের তালিকায় তার ক্রমিক নম্বর ১১। এছাড়া কাজলা এলাকায় ফজলুল হক নামে এক ব্যক্তি নিয়মিত উপাচার্যকে মাংস সরবরাহ করতেন। তার মেয়েরও চাকরি হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে তার মেয়ের নাম ও কোন পদে চাকরি পেয়েছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
নিয়োগ-সংক্রান্ত অফিস আদেশ ও তালিকা গনমাধ্যমকর্মীদের হাতে এসেছে। এতে দেখা যায়, অ্যাডহকের মাধ্যমে ৯ জন শিক্ষক, ২৩ জন কর্মকর্তা, ৮৫ জন নিম্নমান সহকারী এবং ২৪ জন সহায়ক কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। উপাচার্যের নির্বাহী আদেশে সংস্থাপন শাখার উপ-রেজিস্ট্রার মো. ইউসুফ আলী নিয়োগপত্রে স্বাক্ষর করেছেন।
নিয়োগের আদেশে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্ট, ১৯৭৩ এর ১২ (৫) ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে নিম্নলিখিত প্রার্থীদের তাদের নামের পাশে বর্ণিত পদ ও স্থানে অস্থায়ী ভিত্তিতে (অ্যাডহক) অনধিক ছয় মাসের জন্য নিয়োগ দেওয়া হলো। এ নিয়োগ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর করা হোক। এছাড়া নিয়োগপত্রে বলা আছে, প্রার্থীদের নিয়োগ যোগদানের দিন থেকে কার্যকর হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *