বাঘায় গাছের সাথে বেধে চোর পেটানো মামলায় দু’জন আটক

বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় জল মটার চুরির অভিযোগে তিনচরকে গাছে বেধে নির্যাতন করার অভিযোগ দায়ের করা মামলায় চোর সহ বাদীর ভাইকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার(২৯-এপ্রিল)রাতে মোহদীপুর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ তারিখ উপজেলার মহদিপুর এলাকায় চোর সন্দেহে তিনজনকে গাছে বেধে নির্যাতন করার ঘটনা ঘটে। এটি বিভিন্ন গনমাধ্যমে প্রকাশ হলে আমরা উভয় পক্ষকে থানায় ডেকে মামলা নেই। এ মামলায় বৃহস্পতিবার রাতে বাদী আইযুব আলীর ভাই মোখলেসুর রহমান এবং তিন চোরের মধ্যে শহিদুল ইসলামকে আটক করি। পরে জিঙ্গাসাবাদে শহিদুল ইসলাম চুরির সত্যতা স্বীকার করে। অপর দিকে আইন হাতে তুলে গাছে বেধে চোর পেটানোর অভিযোগে মটার মালিকের ভাই মোখলেছুর কেউ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
উল্লেখ্য উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের মহদিপুর গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আযুব আলীর বাড়ির আঙ্গিনায় জল মটার বসানো ছিল। এই জল মটারটি চুরির অভিযোগে বারশতদিয়াড় গ্রামের টুলু হোসেনের ছেলে দুলু হোসেন (৩০), হেলালপুর গ্রামের সারাত আলীর ছেলে মাইদুল ইসলাম (৪০)ও মহদিপুর গ্রামের জান মোহাম্মদের ছেলে সাইদুল ইসলামকে (৪৫) ধরে এনে গাছের সাথে বেধে নির্যাতন করা হয় । যার সত্যতা স্বীকার করেন মটার মালিক আযুব আলীর ভাই মোখলেসুর রহমান।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *