গোমস্তাপুরে অবৈধভাবে পুকুর খনন \ ইটভাটায় মাটি বিক্রি করছে এক ইউপি সদস্য

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ দেশের প্রচোলিত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে পুকুর খনন করছে গোমস্তাপুর উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম। সেই মাটি বিক্রি করছেন বিভিন্ন ইটভাটায়। স্থানীয় লোকজন নিষেধ করলেও কাউকে তোয়াক্কা করছেন না ওই ইউপি সদস্য।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের কুমারগাড়া বিলে ওই ইউপি সদস্য তার নিজ মালিকানাধীন জমিতে এক্সকেভেটর (ভেকু) মেশিন দিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে মাটি কেটে দীঘি পুকুর খনন করছেন। প্রশাসনের কোন অনুমতি না নিয়ে। জমিটির চারপাশেই রয়েছে আম বাগান। ট্রাকে করে খননের মাটি নেয়ার পথে এলাকার বিস্তীর্ণ ফসলি জমিও নষ্ট হবার উপক্রম হচ্ছে।
মাটি খননের কাজে নিয়োজিত আমীর হোসেন জানান, ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম ৫বিঘা জমিতে পুকুর খনন করছে। উত্তোলিত মাটি আশেপাশের বিভিন্ন ভাটায় বিক্রি করছেন। তিনি জানান, প্রতি ট্রাক খননের মাটি ৬’শ টাকা থেকে ৭’শত ‘টাকায় বিক্রি করছেন। প্রতিদিন ৭/৮ টি ট্রাক এ মাটি বহনের কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে ।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পার্শ^বর্তী জমির একাধিক মালিক জানান, শরিফুল ইসলাম এলাকার প্রভাবশালী ও বর্তমান ইউপি মেম্বার হওয়ায় কারো কথা কর্ণপাত করছেন না। ট্রাক বারবার আসা-যাওয়ায় ধুলোতে ফসলী জমির অনেক ক্ষতি হচ্ছে। পরিবেশের পাশাপাশি নষ্ট হচ্ছে রাস্তাঘাটও। অথচ সরকারী নিয়ম অনুযায়ী পুকুর, খাল-বিল, নদ-নদী, চরাঞ্চল, পতিত ও আবাদী জমিতে মাটি কাটা নিষিদ্ধ। এছাড়া স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে নির্মিত উপজেলা, ইউনিয়ন বা গ্রামীণ সড়ক ব্যবহার করে কোন ভারী যানবাহন দিয়ে ইটভাটার কাঁচামাল আনা নেয়া নিষিদ্ধ। কিন্তু এর কোন নিয়মই মানছেন না ওই প্রভাবশালী ইউপি সদস্য।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাস জানায়, পুকুর খননের অনুমতি চেয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি দরখাস্ত করা হয়েছিল, অনুমতি না পাওয়ায় নিজ উদ্যোগে খনন কাজ শুরু করি।
এ বিষয়ে গোমস্তাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার নজির বলেন,অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *