নওগাঁ জেলায় ১ লক্ষ ২ হাজার ৪শ ২৮ জন কৃষককে  ফসল উৎপাদনে কৃষি প্রনোদনা বীজ ও সার বিতরন

নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁ জেলায় ১ লক্ষ ২ হাজার ৪শ ২৮ জন কৃষককে বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে সরকারী প্রনোদনা প্রদান করা হচ্ছে। প্রনোদনা হিসেবে বীজ এবং ডি এ পি সার এবং এম ও পি সার। এসব কৃষকদের মধ্যে জেলা প্রশাসক এবং স্বচ স্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের সার্বক্ষনিক পরামর্শ অনুযায়ী ফসলভিত্তিক পরিমাণ অনুযায়ী স্থানীয় কৃষি বিভাগের তত্বাবধানে বীজ ও সার বিতরন করা হচ্ছে।

নওগাঁ জেলার কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ শামসুল ওয়াদুদ জানিয়েছেন মোট ৮টি খাতে ২১টি ফসলের অনুকুলে এসব বীজ ও সার বিতরন কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। খাতগুলো হচ্ছে মাসকলাই চাষে ৬শ জন কৃষক, শাকসব্জি চাষী ২ হাজার ২শ জন কৃষক, কৃষি পূনর্বাসন কর্মসূচীর আওতায় ৮টি ফসলের আওতায় ৩২ হাজার ৫শ জন কৃষক, কৃষি প্রনোদনা খাতে ৬টি ফসলের আওতায় ২০ হাজার ৪শ জন কৃষক, স্পেশাল পেঁয়াজ প্রনোদনা খাতে ৬শ জন কৃষক, বোরো হাইব্রীড বীজ সহায়তা খাতে ৪৫ হাজার জন কৃষক, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ব্রি কর্ত্তৃপক্ষ প্রদত্ত বীজ সহায়তা খাতে ৭৯৫ জন কৃষক এবং আমন ধানের কমিউনিটি বীজতলা তৈরী খাতে ৩৩৩ জন কৃষক। কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালখ কৃষিবিদ মোঃ শামসুল ওয়াদুদ জানিয়েছেন প্রনেদাপ্রাপ্ত সকলেই প্রান্তিক চাষী। প্রত্যেককে ১ বিঘা জমির অনুকুলে এই প্রনোদনা প্রদান করা হচ্ছে।

সূত্রমতে মাসকলাই চাষে ৬শ জন কৃষককে জন প্রতি ৫ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার প্রদান করা হয়। শাকসব্জি চাষের ক্ষেত্রে ২ হাজার ২শ জন কৃষকের প্রত্যেককে ১ প্যাকেট করে সমন্বিত বীজ প্রদান করা হয়।

কৃষি প্রনর্বাসন কর্মসূচীর আওতায় মোট ৩২ হাজার ৫শ চাষীদের প্রত্যেক সরিষা চাষীদের ১ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, গমচাষীদের প্রত্যেককে ২০ কেজি করে বীজ, সূর্যমূখী চাষীদের প্রত্যেককে ১ কেজি করে বীজ, চিনাবাদাম চাষীদের প্রত্যেককে ১০ কেজি করে বীজ, মসুরডাল চাষীদের প্রত্যেককে ৫ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার, খেসারী চাষীদের প্রত্যেককে ৫ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার, টমেটো চাষীদের প্রত্যেককে ৫০ গ্রাম করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার এবং মরিচ চাষীদের প্রত্যেককে ৩শ গ্রাম করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার।

কৃষি প্রনোদনা কর্মসূচীর আওতায় ২০ হাজার ৪শ জন কৃষকের মধ্যে বোরো চাসীদের প্রত্যেককে ১ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, গমচাষীদের প্রত্যেককে ২০ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, ভুট্টাচাষীদের প্রত্যেককে ২ কেজি করে বীজ, ২০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, সরিষা চাষীদের প্রত্যেককে ১ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, সূর্যমুখী চাষীদের প্রত্যেককে ১ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার, চীনাবাদাম চাষীদের প্রত্যেককে ১০ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার, মুগডাল চাষীদের প্রত্যেককে ৫ কেজি করে বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার এবং পেঁয়াজ চাষীদের প্রত্যেককে ২৫০ গ্রাম করে বীজ, ৫ কেজি করে ডিএপি ও ৫ কেজি করে এমওপি সার,

৬শ জন স্পেশাল পেঁয়াজ চাষীদের প্রত্যেককে ৭৫০ গ্রাম করে বীজ, ২০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার বিতরন করা হয়।

বোরো হাইব্রীড বীজ সহায়তা কার্যক্রমের আওতায় জেলার ৪৫ হাজার কৃষকের প্রত্যেককে শুধু ২ কেজি করে বীজ প্রদান করা হয়।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে ব্রি কর্ত্তৃক প্রদত্ত ৭৯৫ জন ক্রষকের প্রত্যেককে ৪ কে জি করে বীজ সহায়তা করা হয়। এ ছাড়াও আমন ফসলের জন্য কমিউনিটি বীজতলা তৈরী কর্মসূচীর আওতায় ৩৩৩ জন ক্রষকের প্রত্যেককে ১ বিঘা জমিতে ধান রোপনের প্রয়োজনীয় বীজতলা তৈরী করে দেয়া হয়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *