তীব্র তাপদাহে পুড়ছে রাজশাহী মহানগরীসহ সমগ্র বরেন্দ্র অঞ্চল

রাগে অনল ফুলকি যেন বাতাসে
—————————–————-
আবুল কালাম আজাদ :- সকাল একটু বাড়তেই সূর্য যেন তার সব রাগ উগড়ে দিচ্ছে বরেন্দ্র অঞ্চলে। এমন রাগে অনল ফুলকি যেন ছুটছে বাতাসে। পুড়ছে রাজশাহী মহানগরীসহ বরেন্দ্রের পথ-ঘাট।
গত কয়েকদিনের তাপে তেঁতে উঠেছে মাঠ, ঘাট, প্রান্তর। বাহির বা ঘরে কোথাও স্বস্তি নেই। এমন গরমে প্রাণীকুলের জীবন এখন যায় যায় অবস্থা। একদিকে লকডাউন আরেক দিকে তাপপ্রবাহ। প্রধান প্রধান সড়কগুলো এমনিতেই জনশূন্য হয়ে পড়েছে। যত দিন গড়াচ্ছে তাপমাত্রা ততই বাড়ছে। বৃষ্টি না হওয়ায় কৃষিকে বেড়েছে খরচ। কৃষকের বেরো ধানে লাগছে বেশি সেচ। খরতাপে শুকিয়ে যাচ্ছে গাছে থাকা আম ও লিচুর গুটি।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, রাজশাহী মহানগরীর পূর্ব দিকে পুঠিয়া, চারঘাট ও বাঘা উপজেলার কিছু অংশে গত ১১ এপ্রিল ৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এর আগে ৯ এপ্রিল সেদিকে দুই মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু রাজশাহী শহরেরই পশ্চিম প্রান্ত থেকে গোদাগাড়ী, তানোর এবং মোহনপুর, পবা, দুর্গাপুর এবং বাগমারায় এখন পর্যন্ত বৃষ্টির খবর পাওয়া যায়নি। ফলে রাজশাহীতে তাপদাহ কমছে না।
রাজশাহীজুড়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপদাহ বয়ে যাচ্ছে। সাধারণ দিনের তাপমাত্রা ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ভেতর থাকলে তাকে মাঝারি তাপদাহ হিসেবে ধরা হয়। ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে বলে মৃদু তাপদাহ। আর ৪০ থেকে ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে তীব্র তাপদাহ হিসেবে ধরা হয়। ফলে রাজশাহীতে এখন মাঝারি তাপপ্রবাহ বইছে।
রাজশাহী আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক রেজাউনুল হক জানান, রাজশাহীতে চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল গত ১৪ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সোমবার রাজশাহীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৩ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আপাতত বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই বলেও জানান এই রাজশাহীর এই আবহাওয়া কর্মকর্তা।
রাজশাহী আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের তথ্য মতে, এর আগে ২০০০ সালে রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপর ২০১৪ সালের ২৫ এপ্রিল রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয় ৪১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তারপর তাপমাত্রা বাড়লেও এখন পর্যন্ত রাজশাহীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আর ৪২ ডিগ্রি অতিক্রম করেনি।
১৯৪৯ সাল থেকে দেশে তাপমাত্রার রেকর্ড শুরু হয়। এর মধ্যে ১৯৭২ সালের ১৮ মে রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪৫ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা। যা এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বলেও পরিসংখ্যানে উল্লেখ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *