৩০নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন মেয়র লিটন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজশাহী মহানগরীর ৩০নং ওয়ার্ডে শীতার্র্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে নজিরের মোড়ে ৩০নং ওয়ার্ড (উত্তর) আওয়ামী লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার সব সময় মানুষের পাশে থাকে। করোনাকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারা বাংলাদেশে লক্ষ লক্ষ মানুষকে খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন। শীত শুরুর পর থেকে সারা বাংলাদেশে শীতার্ত মানুষের জন্য শীতবস্ত্র পাঠিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো শীতবস্ত্র আমরা বিতরণ করছি।
মেয়র আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের সরকার। সরকার নিজস্ব অর্থে পদ্মা সেতু সহ দেশে মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়ন সহ সার্বিক উন্নয়ন করছে। সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় রাজশাহীর সার্বিক উন্নয়ন কাজ চলমান আছে। রাজশাহীর উন্নয়নে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের জন্য তিনটি শিল্পাঞ্চল অনুমোদন দিয়েছেন। বিসিক শিল্পনগরী-২, চামড়া শিল্প পার্ক ও বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কাজ শেষ হলে এখানে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। এজন্য কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হতে চাকরিপ্রত্যাশীদের আহ্বান জানান মেয়র।
৩০নং ওয়ার্ড (উত্তর) আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ রাব্বেল হোসেনের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার। এছাড়া বক্তব্য দেন মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হক পিন্টু, কার্যনিবাহী সদস্য জহির উদ্দিন তেতু, আলেমুল হাসান সজল, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মোঃ আব্দুল মান্নান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালা করেন ৩০নং ওয়ার্ড (উত্তর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল হান্নান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *