বাঘার আড়ানীতে উত্তেজনা প্রচারে বাধা অভিযোগ বিএনপির

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় আড়ানী পৌর নির্বাচনে তবে ঠিক তার উল্টো চিত্র বিএনপি শিবিরে। আওয়ামীলীগ মেয়র প্রার্থী বলেছেন, ব্যাপক হাাে জনসর্মথন হারোনোয় প্রচার চালানোর মতো লোক নেই বিএনপিতে। অপরদিকে বিএনপির অভিযোগ প্রচারে বাধা দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। রাতের অন্ধকারে ছিঁড়ে ফেলা হচ্ছে ধানের শীষের পোস্টার-ব্যানার।এদিকে নির্বাচন প্রশ্নে আওয়ামীলীগ এবং বিএনপির এ টানাপোড়েন ছাপিয়ে যেটি সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে তা হল ভোটাদের ভাবনা।
নির্বাচনী পরিবেশ জমজমাট হলেও বহু ভোটাররের আশস্কা নিজের ভোট নিজে দিতে পারবের কিনা তা নিয়ে ১৬ জানুয়ারি নির্বাচনে আড়ানী পৌর নির্বাচনে ভোট যুদ্ধ হবে। এর মধ্যে লড়াই হবে আড়ানী পৌর নির্বাচনে ত্রিমুখী লড়াই হতে পারে। তারা হলেন বিএনপির প্রাথী তোজাম্মেল হক(ধানের শীষ),আওয়ামীলীগ প্রার্থী শহিদুজ্জামান শাহীদ (নৌকা) ও বর্তমান মেয়র মুক্তার আলী সতন্ত্র (নারিকেল গাছ) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা হবে।
আড়ানী পৌরসভার ধানের শীষ প্রার্থী তোজাম্মেল হক বলেন, গত ৭জানুয়ারি দুপুরে ৩নং ওয়ার্ডের হামিদকুড়া এলাকায় আমিসহ আমার লোকজন ভোট চায়তে গেল আওয়ামীলীগ প্রার্থীসহ ৩০/৪০ জন লোক দলবব্দ হইয়া আমাকে সহ আমার সঙ্গীয় কর্মীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ দিতে থাকে এবং বলে যে শালারা নির্বাচনী এলাকা ত্যাগ কর এবং নির্বাচনী প্রচারনায় মাঠে নামলে মারপিট করিয়া হাত পা ভাঙ্গিা দিব বলিয়া আমাদের প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে এলাকা হইতে বাহির করিয়া দেয়। এবং ধানের শীষ প্রতীকের পোস্টার ছিড়িয়া ফেলে। আরো বলে যে, শালারা নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে নামলে তোদের বাড়ি ঘরে প্রেট্রোল ঢালিয়া পোড়াইয়া দিব বলে হুমকি দেয়।
এব্যাপারে বিএনপির প্রার্থী তোজাম্মেল হক ৭ জানুয়ারি বাঘা থানায় আওয়ামীলীগ প্রার্থীর নামসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করাসহ ৩০/৪০ জনের নামে অভিযোগ করেন।
নিবাচনী পরিবেশ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে কোনো পরিবেশই নেই। আমার কর্মী-সর্মথকরা প্রচারণায় নামলেই হুমকি দেয়া হচ্ছে। রাতের আঁধারে ছিঁেড় ফেলা হচ্ছে পোস্টার-ব্যানার।
অভিযোগ সর্ম্পকে জানতে চাইলে নৌকার প্রার্থী শহিদুজ্জামান শহীদ বলেন, লোকবল-জনসর্মথন কিছুই নেই বিএনপির প্রার্থীর। সে যদি এসব অভিযোগ করেন তাহলে তো আমার আর কিছু বলার নেই। এসব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট।
বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে, তদন্ত জন্য একজন অফিসার কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *