বাঘায় গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধু আত্মহত্যা

বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘা পৌরসভার মর্শিদপুর গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আরিফুল ইসলামের সাথে শিলা খাতুন নামের এক মেয়ের পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে দেয়া হয়। সংসার ভালই চলছি। কিন্তু পরিবারের লোকজনের অজান্তে বৃহস্পতিবার দুপুরে গলায় ফাঁস দেয়। পরিবারের লোকজন জানতে পেরে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক শিরিন আকতার তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
মৃত শিলা খাতুনের পিতা আবু হোসেন বলেন, সরকারের বেঁধে দেয়া বয়স সীমার আগে আমার মেয়েকে দুই বছর আগে বিয়ে দেয়া হয়েছিল। সংসার ভাল চলছিল। কিন্তু কি কারনে আতœহত্যা করেছে, এর কারন জানতে পারেনি।
তবে মৃত্যুর খবর বাঘা থানাকে অবগত করা হলে তার স্বামী আরিফুল ইসলাম ও তার পরিবারের লোকজন লাশ ফেলে শটকে পড়ে। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়। তবে তাৎক্ষনিকভাবে তার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি। মৃত শিলা খাতুন (২০) বাঘা পৌরসভার মিলিকবাঘা গ্রামের আবু হোসেনের মেয়ে।
বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, মৃত্যুর রহস্য উদঘটনে জন্য লাশ ময়না তদন্ত করা হবে। এ ব্যপারে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *