সাপাহারে শাওন ক্লিনিকের সাবেক ম্যানেজারের স্ত্রীকে ধর্ষন চেষ্টা: মালিকের বিরুদ্ধে মামলা

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে অবস্থিত শাওন ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনিস্টিক সেন্টারের মালিক সইবুর রহমান বকুলের বিরুদ্ধে তার সাবেক ম্যানেজারের স্্রীকে জোরপুর্বক ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় যৌন নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবঁধু বাদী হয়ে ধর্ষন চেষ্টাকারীর বিরুদ্ধে সাপাহার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।
এলাকাবাসী ও দায়েরকৃত মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার করমুডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা ফায়জুল কবির প্রায় ৪ মাস পুর্বে আসামীর শাওন ক্লিনিক এন্ড ডায়াগোনিস্টিক সেন্টারের ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন । ক্লিনিকের অদুরে জৈনক কিবরিয়ার বাসা ভাড়া নিয়ে ফায়জুল দম্পতি সেখানে বসবাস করে আসছিলেন। সেই সুবাদে স্থানীয় শাওন ক্লিনিক এন্ড ডায়াগোনস্টিক সেন্টারের মালিক প্রভাবশালী সইবুর রহমান বকুলের ওই বাসায় অবাধে যাতায়াত ছিল। ফায়জুল দম্পতি ক্লিনিক মালিককে চাচা হিসেবে সম্বোধন করতেন। এক পর্যায় ক্লিনিক মালিকের কু-নজর পড়ে সাবেক ম্যানেজারের স্ত্রীর (২৬) প্রতি তাই বিভিন্ন সময় তাকে কু প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো বকুল। ওই গৃহবঁধু তার কু-প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় প্রভাবশালী ক্লিনিক মালিক তাকে হুমকি ধামকী দিয়ে ভয় ভিতি প্রদর্শন করে আসছিলো। সর্ব শেষ ঘটনার দিন গত ২৩ নভেম্বর রাতের বেলা ক্লিনিক মালিক বকুল ওই গৃহবঁধুর বাসায় গিয়ে তার শয়ন ঘরে প্রবেশ করে তাকে একা পেয়ে ঝাপটে ধরে খাটের উপর ফেলে বিবস্ত্র করে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় ওই নারী লোভীর হাত থেকে নিজেকে রক্ষার জন্য গৃহবধু ডাক চিৎকার শুরু করে। তার আত্মচিৎকার শুনে পাশে অবস্থানকারী স্বামী ফায়জুল ঘটনাস্থলে ছুটে আসে ও লম্পটের হাত থেকে তার স্ত্রীর ইজ্জত সম্ভ্রম বাঁচানোর জোর চেষ্টা চালায়। এসময় উভয়ের মধ্যে ধস্তাদস্তির এক পর্যায়ে ক্লিনিক মালিক বকুল নির্যাতনের শিকার ওই গৃহ বধুর স্বামীর সার্টের কলার ধরে মারধর শুরু করে। এতে করে ঘটনাস্থলে ঘরের দরজায় আঘাত লেগে ধর্ষনের চেষ্টাকারী বকুল মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয় ও ফায়জুলের এন্ড্রোয়েড মোবাইল ফোনটি হাতে নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। বিষয়টি তাৎক্ষনিক বাজারে লোকজনের মাঝে জানাজানি হলে ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। পরে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবঁধু বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় জড়িত ক্লিনিক মালিক বকুলের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করে। এ দিকে তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থায় স্থানীয় ভাবে বিষয়টির আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায়। ঘটনার এক সপ্তাহ পর গত ৩০ নভেম্বর স্থানীয় থানায় ওই গৃহবধুঁ বাদী হয়ে ধর্ষন চেষ্টাকারী প্রভাবশালী সইবুর রহমান বকুলের বিরুদ্ধে
এফআইআর নং-২২/২৫৩, ধারা-৩২৩/৩৭৯/৫০৬ পেনাল কোড-১৮৬০ সহ ৯(৪) (খ) ২০০০ সালের নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা থেকে বাঁচতে ধর্ষনের চেষ্টাকারী বকুল থানায় একটি কাউন্টার মামলা দায়ের করেন। উল্লেখিত ঘটনার পর থেকে ক্লিনিক মালিক সইবুর রহমান বকুল চিকিৎসার অজুহাতে এলাকার বাইরে অবস্থান করছেন। তার বিরুদ্ধে সাবেক ম্যানেজারের স্ত্রীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি ওই ঘটনাকে সম্পুর্ন মিথ্যা পূর্ব পরকিল্পিত ও ষড়যন্ত্র মুলক ঘটনা বলে মন্তব্য করেন। এ বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে বলে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)তারেকুর রহমান সরকার জানিয়েন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *