বাঘায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক যুবকের আত্মহত্যা

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক যুবক আতœহত্যা করেছে। রোববার সকালে নিজ শয়ন ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করে।
জানা যায়, উজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের হরিরামুর এলাকার রুপপুর গ্রামের মিন্টু মুন্সির ছেলে মিনহাজু ইসলাম (১৭) দীর্ঘদিন থেকে মানষিক রোগে ভূগছিল। এই সমস্যা সহ্য করতে না পেরে পরিবারের লোকজনের অজান্তে নিজ ঘরের তীরের সাথে গলায় দঁড়ি দিয়ে আতœহত্যা করে। পরে বাঘা থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।
মিনহাজু ইসলামের মা গুলজান আরা বেগম জানান, বাড়ির পাশে বন্ধুদের সাথে শনিবার রাতে খিঁচুরি খাওয়ার আয়োজন করে। তারা সেখানে এক সাথে ৩০ থেকে ৩৫ জন খাওয়া দাওয়া শেষে রাত ১০টার দিকে নিজ বাড়িতে আসে। রোববার সকালে তাকে নাস্তা করার জন্য ডাকতে গেলে তীরের সাথে ঝুলতে দেখি। পরে পরিবারের অন্যদের ডেকে তাকে নামিয়ে দেখি সে মারা গেছে।
মিনহাজু ইসলামের বাবা মিন্টু মুন্সি জানান, আমার ছেলে অনেক দিন থেকে মানষিক রোগে ভূগছিল। তাকে বিভিন্নস্থানে চিকিৎসা করেও ভাল হয়নি। ছেলে ঢাকায় গার্মেন্সের কিছুদিন গার্ডের চাকুরি করেছে। মানষিক সমস্যার কারনে চাকরি করতে পারেনি।
মনিগ্রাম ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম জানান, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে লাশ দাফনের অনুমতি দিয়েছেন।
বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এদিকে মনিগ্রাম ইউনিয়নের হাবাসপুর হিন্দুপাড়া গ্রামে শনিবার সকালে গলায় ফাঁস দিয়ে অখিল চন্দ্র সরকারের স্ত্রী জয়া রানী সরকার (৩২) নামের এক গৃহবধু আতœহত্যা করেছেন। সে দীর্ঘদিন মানুষিক রোগে ভুগছিল বলে ওসি নজরুল ইসলাম জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *