শীর্ষ মাদক ব্যাসায়ী শহিদুল সহ বাঘায় ১২ আসামী আটক

বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘা সীমান্ত এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম-সহ ওয়ারেন্ট ভুক্ত ১২ জন আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।
থানা সুত্রে জানা গেছে, বাঘা সীমান্ত এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী হিসাবে পরিচিত শহিদুল ইসলাম দু’টি মামলার ওয়ারেন্ট মাথায় নিয়ে গোপনে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। তার নামে বাঘা থানায় ৭ টি মাদক মামলা রয়েছে। সোমবার দিবাগত রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাঘা থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে তার নিজ গ্রাম পাকুড়িয়া এলাকা থেকে তাকে আটক করে। তার বাবার নাম নুরুজ্জামান বলে জানা গেছে।
অন্যান্য আসামীরা হলো- বাঘা উপজেলার বাউসা গ্রামের আকছার আলীর ছেলেআশিকুর রহমান হাবিব, হরিরামপুর গ্রামের মাহাতাবের ছেলে মিঠু শেখ, চন্ডিপুর গ্রামের জালাল উদ্দীনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম, লক্ষীনগর গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে তমছু আলী,নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আব্দুল কালাম ছেলে রবিন হোসেন ও রাজা সরকার,চক সিংড়া গ্রামের খাজের আলীর ছেলে সবুজ মিঞা ও লালন উদ্দিন,উত্তর গাওপাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেরৈ ফিরোজ আহাম্মেদ, বানিয়া পাড়ার মকবুলের ছেলে আশাদুল ইসলাম ও মনিগ্রামের সাপ্তার আলীর ছেলে শামিম হোসেন। এ সব আটককৃত আসামীদের অধিকাংশ জনই মাদক, নারী শিশু নির্যাতন, জমিজামা, মারামারি, মামলার আসামী বলে নিশ্চিত করেন পুলিশ।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, সোমবার দিবাগত রাতে চারঘাট সার্কেলের সিনিয়ার(এ.এস.পি)নুরে আলম স্যারের নেতৃত্বে রাতভর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালিত হয়। এ অভিযানে প্রায় ৫০ টি বাড়িতে হানা দেয়া হয়। এর মধ্যে ৩০ জনকে আটক করা হয়। ১৮ জন জামিনের রিকল দেখানোর কারনে তাদেও ছেড়ে দেওয়া হয়। অত্র এলাকার চিহৃত মাদক ব্যাসায়ী শহিদুল ইসলাম সহ ১২ জন ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামীকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। আটককৃতদের মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *