রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিএম রহনপুর রেলস্টেশন পরিদর্শন

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর রেলস্টেশন পরিদর্শন করেছেন রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গুহ। শনিবার তিনি রহনপুর রেলস্টেশন পরিদর্শন করেন।
এ সময় তার সাথে ছিলেন, এজিএম অজয় কুমার পোদ্দার, প্রধান প্রকৌশলী আবুল ফাতাহ্ মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান, সিওপিএস শহিদুল ইসলাম, প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী কুদরত-ই-খোদা, সিসিএম আহসানউল্লাহ ভূঁইয়া, প্রধান বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী  শফিকুর রহমান, সিইও রেজাউল করিম, বিভাগীয় প্রকৌশলী (২) আব্দুর রহিম ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর চিফ কমাড্যান্ট আশরাফুল ইসলাম সহ রেলওয়ের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউর রহমান ১৬ দফা দাবী সম্বলিত একটি স্বারকলিপি তার হাতে তুলে দেন।
দাবী সমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, রেলওয়ে মার্কেট নির্মাণ, রহনপুর-ঢাকা সরাসরি ট্রেন চালু, রাজশাহী-রহনপুর রাতে সরাসরি ট্রেনের ব্যবস্থা, রহনপুর-চাঁপাইনবাবগঞ্জ- রাজশাহী লোকাল ট্রেন পুনরায় চালু করন প্রভৃতি।  এসময় উপস্থিত ছিলেন,রহনপুর পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও জেলা পরিষদ সদস্য হালিমা খাতুন, জালাল উদ্দিন আকবর মুক্তি, মতিউর রহমান খাঁন মতি, জাহিদ হাসান মুক্তা, সিরাজুল ইসলাম টাইগার, বিএনপি’র মনোনয়ন প্রত্যাশী ডা: মফিজ উদ্দিন, জেলা পরিষদ সদস্য ও নাচোল  পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েল বিশ্বাস,নাচোল উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবু তাহের খোকন ও রহনপুর উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম আশরাফ প্রমুখ।
জনপ্রতিনিধিদের দাবীর প্রেক্ষিতে জিএম মিহির কান্তি গুহ উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, দাবীগুলো আমাদের সক্রিয় বিবেচনায় রয়েছে। তিনি আরও জানান, রহনপুর রেল বন্দর দিয়ে ভারত হয়ে নেপাল ও ভুটানে রেল যোগাযোগ প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ফলে এ কারনে রহনপুর রেল বন্দরের গুরুত্ব অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ রেল বন্দরের অবকাঠামোগত উন্নয়ন সহ রেলওয়ের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষে রেলওয়ের  যথেষ্ট জায়গা রয়েছে।
উন্নয়নের প্রয়োজনে অবৈধ ভাবে দখল করা ভূ-সম্পত্তি দ্রুত দখল মুক্ত করা হবে। এছাড়া নাচোল রেলওয়ে স্টেশনে শেড নির্মাণ, রেল লাইন সম্প্রসারন সহ অন্যান্য রেল স্টেশনের অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হবে।
রেলের জিএম তার সফর সঙ্গীদের নিয়ে ভারত সীমান্তের কাছাকাছি বাঙ্গাবাড়ির শিবরামপুর বর্ডার পরিদর্শন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *