সিরাজগঞ্জের চাঞ্চল্যকর ফরিদা পারভীন হত্যা মামলার আসামী প্রেমিক মজিদের ফাঁসির দাবিতে মানব-বন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে চাঞ্চল্যকর প্রেমিকা ফরিদা পারভীন হত্যা মামলার প্রধান আসামী প্রেমিক আব্দুল মজিদের ফাঁসির দাবিতে মানব-বন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে নাগরডালা এলাকাবাসী।
শুক্রবার বেলা ১১ টায় এই মানব-বন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়। ১১ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত চলা ঘন্টাব্যাপী এই  কর্মসূচিতে নাগরডালা সহ আশ পাশের সহস্রাধিক বিভিন্ন  শ্রেণী পেশার নারী পুরুষ  ও শিশু অংশ গ্রহণ করেন। মানব বন্ধন ছাড়াও প্রধান আাসামী আব্দুল মজিদ এর ফাঁসি এবং  অন্যান্য আসামী মজিদের বর্তমান স্ত্রী সাবরিনা সুলতানা শ্রাবন্তী বাবা সওদাগর, মা মজিদা খাতুন ও ভাই আইয়ুব আলীকে গ্রফতারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিলটি নগরডালা বাজারেরে গুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহ প্রদক্ষিণ করে।
কর্মসুচিতে বক্তারা অবিলম্বে আসামীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় না আনলে পরবর্তিতে বৃহত্তর আন্দোলন ও কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হয়।
উল্লেখ্য : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নেয়ার পর প্রেমিকের লোকজনদের মারপিটে আহত হয়ে ফরিদা নামে এক প্রেমিকার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শনিবার শাহজাদপুরের পোতাজিয়ায় অবস্থিত উপজেলা হাসপাতালে নেয়ার আগেই তার মৃত্যু হয়।
উল্লখ্য ,২৪ অক্টোবর দুপুরে উপজেলার হাবিবুল্লাহ নগর ইউনিয়নের নগরডালা গ্রামের বাবর আলীর মেয়ে ফরিদা প্বার্শবর্তী হামলাকোলা গ্রামের সওদাগরের পুত্র প্রমিকা আব্দুল  মজিদের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে অবস্থান করে। এসময় মজিদের পরিবারের লোকজন বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিতে চাইলে ফরিদা না যাওয়ায় বেধড়ক মারধর করে। বেদম প্রহারের ফলে ফরিদার অবস্থার অবনতি দেখে দ্রুত ভ্যানে করে শাহজাদপুর উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স নেঅ হলে কর্তব্যরত ডাক্তার দেখে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনা জানাজানির পর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।
ঘটনায় ফরিদার ছেলে ফরিদ বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে।
ফরিদার ভাইয়ের স্ত্রী জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন যাবৎ সওদাগরের পুত্র মজিদের সাথে ফরিদার প্রেম চলে আসছিল। এর সূত্র ধরেই ২৪ অক্টোবর দুপুরে গোসল শেষে ফরিদা বাড়ির কাউকে না জানিয়ে বিয়ের দাবীতে মজিদের বাড়িতে অবস্থান করে। এসময় মজিদের পরিবারের লোকজনের বেপক মারধরের শিকার হয়ে ফরিদা মারা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *