সাপাহারে হাঁপানিয়া সীমান্তে বিজিবির হাতে আটক-১০

সাপাহার(নওগাঁ)প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহার উপজেলার হাঁপানিয়া সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধ ভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশকালে স্থানীয় বিজিবি ১০জন নারী পুরুষকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করেছে।

বিজিবি নওগাঁ-১৬ ব্যাটালিয়নের ই-কোম্পানী হাঁপানিয়া ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার আব্দুল কুদ্দুস জানান, শনিবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে সীমান্তের ২৩৬ মেইন পিলার এলাকার কৃষœসদা গ্রামের পাশ দিয়ে ভারত থেকে একদল নারী পুরুষ অবৈধ ভাবে বাংলাদেশ অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির টহল দল সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করে।
আটকৃতরা হলো পার্থ বিশ্বাস(২০), পিতা-প্রশান্ত বিশ্বাস, মাতা-শোভা ওঝা, সাং-ভেন্নাবাড়ী, থানা- কোটালীপাড়া, জেলা-গোপালগঞ্জ, প্রানতোষ তপাদার(২২), পিতা-প্রিয়লাল তপাদার, মাতা-কল্পনা তপাদার, সাং-শশিকর, ইউপি-নবগ্রাম, থানা-ডাসার, জেলা-মাদারীপুর, রাজীব চক্রবর্তী (২৯), পিতা-অসিত চক্রবর্তী, মাতা-রেখা চক্রবর্তী, সন্দীপ ভট্টাচার্য (৩২), পিতা-মৃত দুলাল ভট্টাচার্য, মাতা-সন্ধ্যা রানী ভট্টাচার্য, উভয় সাং- পাড়ালা, ইউপি-দুর্বাডাঙ্গা, থানা-মনিরামপুর, জেলা-যশোর, রনি বড়–য়া(২০), পিতা-সঞ্জিব বড়–য়া, মাতা- রিতা বড়–য়া, সাং-বড় দুয়ারা (বাজালিয়া), থানা-সাতকানিয়া, জেলা-চট্টগ্রাম, রনি গোপাল বাওয়ালী(৩৭), পিতা-নকেন্দ্রনাথ বাওয়ালী, মাতা-শোভা বাওয়ালী, সাং-রামভদ্রা (শেখমাটিয়া), থানা-নাজিরপুর, জেলা পিরোজপুর, মোঃ হাবিবুর রহমান(২২), পিতা-মোঃ শাহাদাত হোসেন, মাতা-মঞ্জুরা বেগম, সাং-নারানপুর (কলেজ), ইউপি-বড় আচড়া, থানা-বেনাপোল পোর্ট থানা, জেলা-যশোর, নারায়ন বড়–য়া (২০), পিতা-কন্পর বড়–য়া, মাতা-রুপা বড়–য়া, সাং-হাজারিকুল, থানা-রামু, জেলা-কক্সবাজার, মোছাঃ মুন্নি বিশ্বাস(২৪), পিতা বাশার বিশ্বাস, মাতা-মোছাঃ তাসলি, সাং-মির্জাপুর (রুখালী) থানা ও জেলা-নড়াইল, স্বপ্না বেগম(৩০), পিতা-রুস্তম বেগ,মাতা-মোছাঃ রোকেয়া বেগম,সাং-রঘুয়ারডাঙ্গা (দিগনগর), থানা-মোকসুদপুর, জেলা-গোপালগঞ্জ। আটকৃতদের বিরুদ্ধে হাঁপানিয়া বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে সাপাহার থানায় মামলা দায়ের করেছে। অপরদিকে আটকৃতরা জানান তারা বেশ কিছুদিন পুর্বে অবৈধ ভাবে ভারতে প্রবেশ করেছিল। সেখানে অবস্থান কালে তারা ভারতীয় পুলিশের হাতে আটক হয়েছিল এবং ভারতের বিভিন্ন জেলখানায় সাজা ভোগ করে ছাড়া পেয়ে রাতের বেলা ওই পথ দিয়ে বাংলাদেশে ফিরে আসছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *