শহীদ কামারুজ্জামান হেনার কবর জিয়ারত করলেন বাঘা পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র আক্কাছ

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : মেয়র হিসেবে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবার পর জাতীয় চার নেতার অন্যতম,শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান হেনার কবর জিয়ারত করেছেন রাজশাহীর বাঘা পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র আক্কাছ আলী।
শুক্রবার (১৩জানুয়ারি) দুপুরে মহানগরের কাদিরগঞ্জ এলাকায় পারিবারিক কবরস্থানে কামারুজ্জামানের কবর জিয়ারত করেন তিনি।এ সময় তাঁর সাথে রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, এদিন সকাল সাড়ে ১১টায় নিজ বাড়ি সংলগ্ন কালিদাসখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণ থেকে গাড়ি বহর নিয়ে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে রওয়ানাদেন পৌর মেয়র আক্কাছ আলী।
রাজশাহী পৌঁছে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে রাজশাহী সিএমবি মোড়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এরপর শামমুখদুম মাজার জিয়ারত করে জাতীয় চার নেতার অন্যতম জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, রাসিক মেয়র ও আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য খাইরুজ্জামান লিটনের পিতা: এএইচএম কামরুজ্জামানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করে মোনাজাত করেন।
রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলার পাকুড়িয়া ইউপির চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম মেরাজ এ সম্পর্কে বলেন, শুক্রবার সকাল থেকেই মেয়রের বাসভবনে ভিড় জমান পৌরসদরসহ উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মানুষ। এসময় অনেকেই মেয়রকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।
পরে ৭০টি প্রাইভেটকার,৫টি বাস এবং ১হাজার মটরসাইকেল যোগে উপস্থিত প্রায় পাঁচ হাজার নেতাকর্মিসহ গাড়িবহর নিয়ে রাজশাহীর উদ্দেশে রওনা দেয় নব নির্বাচিত মেয়র। এ সময় প্রিয় নেতাকে দেখতে রাস্তার দুই ধারে ভীড় জমায় অসংখ্য মানুষ । তারা প্রিয় নেতাকে হাত নেড়ে স্বাগত জানান। মেয়রও ছাদ বিহীন গাড়িতে দাঁড়িয়ে জনতার উদ্দেশ্য হাত উঁচিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
পথিমধ্েয এক সংক্ষিপ্ত পথসভায় মেয়র আক্কাছ আলী বলেন,আবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামারুজ্জামান বাংলাদেশের প্রথম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা। তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সমযয়ে গঠিত অস্থায়ী সরকারের স্বরাষ্ট্র, কৃষি এবং ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালযয়ের দাযয়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ছিলেন। তিনি বতর্মান রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন মহানায়ক রাজশাহী তথা সমগ্র উত্তরবঙ্গের আওয়ামী রাজনীতির ঢাল, আমাদের আস্থা ও ভরসার ঠিকানা এএইচএম খাইরুজ্জান লিটনের পিতা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কে স্বপরিবারে হত্যার মাত্র তিন মাস পরেই ৩নভেম্বর ঘাতক কুচক্রীমহল কারা অম্ভন্তরে নির্মম ভাবে হত্যা করে কামরুজ্জামানসহ জাতির চার সুর্যসন্তানকে। যা ছিলো বাংলাদেশের ইতিহাসে আরেকটি ঘৃন্যতম অধ্যায়।
এ সময় মেয়র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পদ্মা সেতু মেট্রোরেল নির্মানসহ নানামুখী উন্নয়নের চিত্র উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্য তুলে ধরে তাঁর প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করেন। এছাড়াও আগামী ২৯ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজশাহীর জনসভা সফল করতে সকলকে এগিয়ে আসতে আহবান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *