রাজশাহী মহানগরীতে কে, আহম্মেদ আর্মস কোং নামে দোকানে পিস্তলের গুলিতে আহত-২

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ রাজশাহী মহানগরীর  একটি বন্দুকের দোকানে পিস্তলের গুলিতে দু’জন আহত হয়েছেন।  আহত দোকান মালিক সোহাগ (৩৫) কে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  আহত অপরজন এক কিশোরীকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

গতকাল রোববার আনুমালিক দুপুর ২টার দিকে  সাহেব বাজার বড় রাস্তা সংলগ্ন আল-হেলাল সুপার মার্কেটের নীচতলায় এ ঘটনা ঘটে।

গুলিতে আহত দোকান মালিক সোহাগ জানান,  গ্রাহক তাঁকে একটি বিদেশী পিস্তল মেরামত করার জন্য দিয়ে যান। সেই পিস্তল মেরামত করার সময় পিস্তলে থাকা গুলি অনিচ্ছাবসতঃ ফায়ারিং হয়ে যায়। এতে করে তিনি আহত হন এবং দোকানের পাশ দিয়ে যাওয়ার পথে মার্কেট মালিক সাংবাদিক মাসুদের ছোট মেয়ে কিশোরী নাফিসাও আহত হন। আহত সোহাগকে চিকিৎসার জন্য তাৎক্ষনিক রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়  এবং নাফিসাকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

এদিকে মার্কেটের ব্যবসায়ীিদের অভিযোগ, সোহাগ মৃগী ও মানসিক রোগ  সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত। একজন অসুস্থ যুবক কিভাবে এরকম ঝুঁকিপূর্ণ অস্ত্রের কাজ কাজ করতে পারে।   মার্কেটের একজন ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলাম বলেন,েআমরা এ মার্কেটে ব্যবসায়ীরা মার্কেটে ব্যবসা করি। সব সময় মার্কেটে ক্রেতাে এবং ব্যবসায়ীদের চলাফেরা রয়েছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে যে কোন সময় একটি অনাকাংখিত ঘটনা ঘটতে পারে। এমনকি গুলিবিদ্ধ হয়ে মানুষ মারাও যেতে পারে। এর দায়দায়িত্ব কে বহন করবে। তিনি আরো বলৈন, মাঝে মধ্যেই সে দোকানের মধ্যেই বন্দুক মেরামতের সময় দোকানের ভিতরে ফায়ার করে বন্দুক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে। মহানগরীর এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ মানব চলাচলের মত এলাকায় বন্দুকের দোকান মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। এ কারণে ব্যবসায়ীরা আতংকিত এবং অভিলম্বে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এ ব্যাপারে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, বিষয়টি তাঁর জানা নেই। এ ব্যাপারে তিনি খোঁজ-খবর নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *