রাজশাহীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহীতে যাথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে।দিসবটি উপলক্ষে অমর একুশে ফেব্রুয়ারীর প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।
রাত ১২টা ১ মিনিটে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে কলেজ ও রাজশাহী বিশ্বাবিদ্যালয় প্রশাসন।
সূর্যোদয়ের সাথে সাথে কুমারপাড়াস্থ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়।
পরে সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে দলীয় কার্যালয় থেকে প্রভাত ফেরী বের হয়। প্রভাত ফেরী শেষে নগরীর ভুবন মোহন পার্কের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
এরপর সেখানে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল এঁর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।
সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে রাজশাহী কলেজের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ। সেখানে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা।
বক্তারা বলেন, একুশ আমাদের চেতনা, আমাদের অহংকার। ১৯৫২ সালের এই দিনে ঢাকার রাজপথ রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল মাতৃভাষা বাংলার দাবিতে। ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়েই রোপিত হয় বাংলার স্বাধীনতার বীজ এবং এরই ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর নেতৃত্বে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের মধ্যদিয়ে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত হয় বাংলার স্বাধীনতা।
 বাংলা ও বাঙালির উপর কোন অন্যায় ও অবিচার মনে নিতে পারতেন না বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কারাগারে থাকাকালিন রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবীতে তিনি অনশন করেছিলেন ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে আন্দোলনকে বেগবান করে রাষ্ট্রভাষা বাংলার মর্যাদা রক্ষা করেন।
বক্তারা বলেন, বিএনপি এখন দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা রাজপথের রাজনীতিতে ব্যর্থ হয়ে বর্তমান সরকারের অপপ্রচার ও দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে শুরু করেছে। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে বিএনপি যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন, আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে তাদের এই ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত জনগণকে সাথে নিয়ে রাজপথেই রুখে দিবো।
এছাড়া বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিম ও রেলওয়ে শ্রমিকলীগ, বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনসহ
বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *