“রাজশাহীতে ঝরছে শিশির বৃস্টি”  দেখা মিলছেনা সূর্যের,জুবুথুবু মানুষ

রাজশাহী প্রতিনিধি :- রাজশাহীতে গত এক সপ্তাহ থেকেই চলছে শৈত্য প্রবাহ। টানা গত কয়েকদিনে সকাল থেকে বেলা বেলা ১১ টার মধ্যে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে ১৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছে। এই শৈত্য প্রবাহের সাথে চলছে হিমেল বাতাস। এর ফলে শীতের তীব্রতা আরো বেড়ে যাচ্ছে। ফলে রাজশাহী অঞ্চল শীতের কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে।
সোমবার বিকেল থেকে কনকনে শীতের সাথে বাতাস বইতে শুরু করেছে। সন্ধ্যার পর বাতাস কিছুটা বাড়তে থাকলে জনমনে অস্বস্থি আসে। রাত ৮ টার পর থেকে ‍কুয়াশায় ঢাকা পড়ে পুরো নগরী। এই কুয়াশার সাথে আকাশ থেকে শিশির বৃষ্টি পড়তে দেখা গেছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে কুয়াশায় ঢাকা পড়ে রাজশাহী অঞ্চল। এই রিপোর্ট লেখা বেলা পৌনে ২ টা গড়িয়ে গেলেও সূর্যের দেখা মেলেনি।
ঘনকুয়াশায় পথঘাট ঢাকা পড়ে যাওয়ায় মহাসড়কে যানবাহন লাইট জ্বালিয়ে চলতে দেখা গেছে। কুয়াশার কারণে সঠিক সময়ে যানবাহন গন্তব্য স্থানে পৌছতে দেরী হচ্ছে বলে গোদাগাড়ী বাস কাউন্টার মাস্টার হারুন আলী জানান।
এদিকে ঘন কুয়াশার জন্য সড়ক পথের মতো ট্রেন পথেও বিলম্বে চলছে সকল রুটের ট্রেন।প্রতিটি ট্রেন চলছে ৩ থেকে ৪ ঘন্টা বিলম্বে ফলে সিডিউল বিপর্যয়ের কবলে সকল ট্রেন।
পশ্চিম রেলের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার বলেন,ঘন কুয়াশায় ট্রেনের ইঞ্জিনের  তীক্ষ্ণ সার্চলাইটও অসহায়।সিগন্যাল দেখতে পাচ্ছেনা চালক।যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য ধীরগতিতে চালাতে হচ্ছে ট্রেন।ফলে ট্রেন নির্ধারিত সময়ে ছাড়তে ও গন্তব্যে পৌঁছতে পারছেনা কোন ট্রেন।
আবহাওয়া কর্মকর্তারা বলছেন- ঠান্ডা বাতাসের কারণে এই তাপমাত্রা গায়ে লাগছে না কারোরই। আর এই হিমেল হাওয়ার দাপটেই কাঁপছে রাজশাহীসহ উত্তর জনপদের ছিন্নমূল মানুষ।
বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, যারা দিনমজুর তারা ঠান্ডার কারনে বিছানা থেকে উঠতে দেরী করায় কাজে যেতে বিলম্ব হচ্ছে। চাকরীজিবীরাও কিছুটা বিলম্বে অফিসে যাচ্ছে। বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকানপাট খুলছে দেরীতে।
এই শীতে বেশী কষ্ট পাচ্ছে বৃদ্ধ ও শিশুরা। আর এই শীতে ঠান্ডাজনিত রোগ দেখা দেওয়ায় হাসপাতাল গুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ফসলের বীজ তলা ঠিকমত পরির্যা করতে না পারা ও কুয়াশায় চারা নষ্ট হওয়ায় কৃষকরা পড়েছে বিপদে।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক লতিফা হেলেন জানান,  মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারী) সকালে রাজশাহীতে সর্বনিন্ম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস। রাজশাহী অঞ্চল গত কয়েকদিন ধরেই শৈত্য প্রবাহ চলমান রয়েছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আকাশ হালকা পরিষ্কার হতে পারে। এছাড়া আকাশে মেঘ ও কুয়াশাও আছে। আগামী আরো এক সপ্তাহ এমন আবহাওয়া থাকবে বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *