মোহনপুরে যুবলীগ নেতার ওপর সন্ত্রাসী হামলা

মোহনপুর (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌর যুবলীগের সদস্য জাবেদ ওমর পলাশের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। অাব্দুল হাকিম নামের এক বিএনপির নেতার নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার রাতে জাবেদ ওমর পলাশের ছোট ভাই জিয়াউল হক বাদি হয়ে বিএনপির নেতা অাব্দুল হাকিমের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা অাসামি মোহনপুর থানার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অাহত যুবলীগ নেতা জাবেদ ওমর পলাশ একজন কাপড় ব্যবসায়ী। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮ টা সময় কেশরহাট কাপড়পট্রিতে কাপড়ের দোকান বন্ধ করা অবস্থায় জাবেদ ওমর পলাশের উপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ধারালো হাঁসুয়া, লোহার রড ও পাইপ দিয়ে তাঁকে পেটাতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হামলাকারীরা তার কাছ থেকে নগদ ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে জাবেদ ওমর পলাশকে মোহনপুর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভতি করান ।

অাহত যুবলীগ নেতাজাবেদ ওমর পলাশ বলেন, অামি হামলাকারীদের মধ্যে অাব্দুল হাকিমকে চিনতে পেরেছেন। অাব্দুল হাকিম উপজেলার  হরিদাগাছি গ্রামের সেকেন্দার অালীর ছেলে ও বিএনপির সক্রিয় নেতা ।

মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: তৌহিদুল ইসলাম  বলেন, আহত যুবলীগ নেতার সাথে কথা বলতে তিনি হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছিলেন। অাহত জাবেদ ওমর পলাশের ছোট ভাই অাব্দুল হাকিম নামের এক ব্যক্তিকে অাসামি করে অভিযোগ দায়ের করেছেন। দোষীদের বিরুদ্ধে  আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে কেশরহাট পৌর যুবলীগের সদস্য জাবেদ ওমর পলাশের উপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন কেশরহাট পৌর যুবলীগের অাহবায়ক অাতিকুর রহমান ও যুগ্ম-অাহবায়ক জামাল হোসেনসহ কমিটির সকল সদস্য।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *