বোনাসের দাবিতে রাজশাহীতে কেমিকো ওষুধ কোম্পানির শ্রমিকদের বিক্ষোভ

রাজশাহী প্রতিনিধি:-বোনাসের দাবিতে রাজশাহীতে বিক্ষোভ করেছেন কেমিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড নামে একটি ওষুধ কোম্পানির কারখানার শ্রমিকেরা। বুধবার সকাল ৮টায় নগরীর সাগরপাড়া এলাকায় তাঁরা কারখানায় গিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন।
শ্রমিকেরা একটি দরজার কাঁচ ভাঙচুর করেছেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
শ্রমিকেরা জানান, কারখানায় প্রায় ৩৫০ জন কর্মী কাজ করেন। এর মধ্যে প্রায় অর্ধেক চাকরি করেন মাসিক বেতনের ভিত্তিতে। আর বাকি শ্রমিকদের কাজ করানো হয় দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে। শ্রমিকেরা কেউ এপ্রিল মাসের বেতন পাননি। এক সপ্তাহ ধরে তাঁদের বলা হয়েছে- ঈদের আগেই বেতন এবং বোনাস দেয়া হবে। মঙ্গলবারও তাঁদের বলা হয়েছে বুধবার বেতন-বোনাস দেয়া হবে। কিন্তু বুধবার সকালে কারখানায় শ্রমিকেরা এলে জানানো হয়, শুধু এপ্রিল মাসের বেতনটাই দেয়া হবে। এই মূহুর্তে বোনাস দেয়ার টাকা নেই। এ কথা শুনে তাঁরা কাজে যোগ না দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন।
কেমিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের রাজশাহীর এই কারখানার প্রধান আবদুল হামিদ খান বলেন, ‘গত বছরের নভেম্বরে কোম্পানির মালিক এমএ কালাম মারা গেছেন। এরপর দায়িত্বে ছিলেন নুরুন আক্তার অরোনা। ছয় মাসের ব্যবধানে গত এপ্রিলে তিনিও মারা গেছেন। এখন দায়িত্ব নিয়েছেন তাঁদের ছেলে নুরুন কালাম। পরপর দুইজন শীর্ষ কর্মকর্তার মৃত্যুতে প্রতিষ্ঠানে আর্থিক সংকট দেখা দিয়েছে। তাই এই সমস্যা। তবে তিনি ঢাকায় প্রতিষ্ঠানের প্রধান কার্যালয়ে যোগাযোগ করেছেন। বুধবারের মধ্যেই শ্রমিকদের এপ্রিলের বেতন পরিশোধের আশ্বাস দেয়া হয়েছে। তবে বোনাস দেয়া সম্ভব হবে না।’
নগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন বলেন, ‘বিক্ষোভের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা এসেছি। কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁরা আজকের (বুধবার) মধ্যেই বকেয়া বেতনটা পরিশোধ করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। আর বোনাসটা ৩০ মে’র মধ্যে দেবেন বলে জানিয়েছেন। শ্রমিকরা এটা মেনে নিলে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’
তবে শ্রমিকেরা জানান, বেতন-বোনাস দুটোই না পেলে কোন শ্রমিক বাসায় ফিরবেন না। সবাই এভাবেই বসে থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *