বাঘা ৫৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধ করণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় মঙ্গলবার (২৪জানুয়ারী) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষাঅধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইডিপি) অন্তর্ভুক্ত স্ট্রেংদেনিং রিডিং হ্যাবিট অ্যান্ডরিডিং স্কিলস অ্যামাং সেকেন্ডারি স্টুডেন্টস স্কিম-এর আওতায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা সকাল ১০ টায় শাহদৌলা সরকারী কলেজ হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।
বাঘা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ,ফ,ম হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শাহদৌলা সরকারি কলেজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবুবক্কার সিদ্দীক, অন্যান্যর মধো বক্তব্য রাখেন পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির টিম ম্যানেজার ইজাজুল ইসলাম, উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার মাহমুদুর রহমান প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের ৫৭টি শিক্ষা প্রতিতষ্ঠান প্রধান এবং সংগঠকবৃন্দ ।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাহমুদুর রহমান বলেন,পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরেন। তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লাইব্রেরী ঘন্টা চালু করার ব্যপারে গুরুত্বারোপ করেন এবং শিক্ষকদেরকে ও পড়ানোর পাশাপাশি বই পড়তে ও উৎসাহিত করেন।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি শারমিন আখতার বক্তব্যের শুরুতে তিনি বাংলাদেশ সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানান এই কর্মসূচিতে অত্র উপজেলাকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য। তিনি বলেন অর্থনৈতিক অগ্রগতির ধারায় দেশকে এগিয়ে নিতে ছাত্র-ছাত্রীদের আরো বেশি মননশীল , দক্ষ মানুষ হিসেবে তৈরি করতে হবে। এক্ষেত্রে বই পড়ার প্রতিত আরো বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। তিনি উপস্থিত প্রতিষ্ঠান প্রধান গণ ও সংগঠকদের কর্মসূচি সুন্দরভাবে বাস্তবায়নের জন্য উদ্বুদ্ধ করতে প্রযোজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন।
ইজাজুল ইসলাম, টিম ম্যানেজার, পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি।তিনি বলেন, উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালার অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে তাদের মন এবং বয়স উপযোগী বই পড়ায় আগ্রহী করে তোলা। ফলে পাঠাভ্যাসের প্রসার ও সুযোগ বৃদ্ধি হবে। কর্মসূচি পরিচালনার জন্য প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের নির্বাচিত শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন, বই পড়া শেষে মূল্যায়নের ভিত্তিতে পুরস্কার প্রদান করা হবে এবং শিক্ষা প্রতিতষ্ঠানে লাইব্রেরি টেকসই ও কার্যকর করার লক্ষ্যে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একযোগে কাজ করবে বলে যানান। উন্মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহন করেন উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের ৫৭ টি শিক্ষা প্রতিতষ্ঠান। পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির কিভাবে সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করতে হবে তা মুক্ত আলোচনায় তুলে ধরেন।
সমাপনী বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সভাপতি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অ,ফ,মহাসান বক্তব্যের এক পর্যায়ে তিনি বই পড়ার ব্যপারে গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বর্তমানে শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠের অভ্যাস কমে গিয়েছে বলে মনে করেন।এন্ড্রয়েড ফোন আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের যেভাবে আসক্ত করেছে সেই জায়গা থেকে বের করে আনার জন্য একাডেমিকের বাইরে বই পড়ার কোনো বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *