বাঘায় মাদক সেবনের অপরাধে আলোচিত রাব্বি সহ আটক ৪

বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় মাদক সেবনের অপরাধে আলোচিত রাব্বি হাসান-সহ চার যুবককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার(৩-এপ্রিল)রাতে উপজেলার খানপুন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় পুলিশ তাদের কাছে থাকা নম্বার বিহীন দু’টি এ্যাপাসি মোটর সাইকেল সহ ফেন্সিডিল এবং ইয়াবা জব্দ করে।
সূত্রে জানা গেছে, চারঘাট সার্কেলের সিনিয়ার (এ.এস.পি) নুরে আলম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাত সাড়ে ১০টার সময় বাঘা থানা পুলিশের সহায়তায় উপজেলার খানপুর গ্রামের খোশবর আলীর বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করেন। এ অভিযানে ঐ বাড়ী ওয়ালার ছেলে মনির হোসেন(২২)বাঘার নারায়নপুর গ্রামের আসাদুল ইসলাম (ভ্যাগল) এর ছেলে রাব্বি হাসান(২৮),সুলতানপুর গ্রামের বাদশা আলমের ছেলে আরিফ(২৫) ও পাশ্ববর্তী লালপুর উপজেলার পানশীপাড়া গ্রামের আক্তার আলীর ছেলে রাব্বানী(২১)কে মাদক সেবন করা অবস্থায় আটক করে। এ সময় পুলিশ ওদের কাছে থাকা এক বোতল ফেন্সিডিল এবং দুই পিচ ইয়াবা-সহ দুটি নম্বর বিহীন এ্যাপাসি মোটর সাইকেল জব্দ করে।
স্থানীয় লোকজন জানান, আটককৃত চার জনের মধ্যে রাব্বি হাসান পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে সু-সম্পর্ক থাকার নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের কাছ থেকে নানা সুযোগ সুবিধা নিয়ে আসছে। কথিত রয়েছে, সে মাদক, ইমো এবং বিকাশ হ্যাকের সাথে সম্পৃক্ত। তার নামে নাটোর, রাজশাহী মতিহার এবং বাঘা থানায় মাদক, নারী নির্যাতন এবং চাঁদাবাজীর মামলা রয়েছে। গত এক বছর আগে সে বাঘা থানার জনৈক (এস.আই) এর সাথে সম্পর্ক রেখে পুলিশের সোর্স পরিচয়ে অনেক মাদক ব্যবসায়ী-সহ সাধারণ মানুষের পকেটে মাদক দিয়ে আর্থিক সুবিধা নিয়েছে। আর এ খবরটি জানা-জানি হলে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করেন কর্তৃপক্ষ।
এদিকে বাঘা উপজেলা আ’লীগ নেতা মাসুদ রানা তিলু জানান, গত বছরের আগষ্ট মাসে রাব্বি-সহ তার অপর দুই বন্ধু তার ছেলের কাছে চাঁদা দাবি করে তাকে মারপিট করে। এ ঘটনায় তিনি থানায় একটি মামলা দায়ের করলে রাব্বিকে আটক করে পুলিশ। পরে হাজত থেকে জামিনে এসে একজন জর্জ সহ পুলিশের আইজিপি এবং এসপির সাথে তার সু-সম্পর্ক থাকার কথা বলে মানুষের কাছে নানা সুবিধা নিচ্ছে। আর এসব ঘটনায় তার সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে প্রায় ডজন খানেক সাঙ্গ-পাঙ্গ। যারা প্রত্যেকেই মাদক সেবনের সাথে সম্পৃক্ত।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তদন্ত আব্দুল বারী জানান, মাদক সেবন করা অবস্থায় চারজনকে আটক করেছি। এদের মধ্যে রাব্বি হাসানের নামে জনশ্রুতি রয়েছে, সে পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে সু-সম্পর্ক থাকার নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের কাছ থেকে নানা সুযোগ-সুবিধা নিয়ে আসছে। এদেরকে মাদক সেবনকারি হিসাবে আদালতে প্রেরন করা হবে বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *