বাঘায় ইমো-বিকাশ হ্যাকের সাথে সম্পৃক্ত জুয়েল রানাকে আটক করেছে পুলিশ

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় ইমো প্রতারণা ও বিকাশ হ্যাকের সাথে সম্পৃক্ত জুয়েল রানাকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা ডিএমপি পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে বাঘা থানা পুলিশের সহায়তায় নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়। ধৃত জুয়েল রানার বাড়ী উপজেলার চক ছাতারী গ্রামে। তার পিতার নাম মোঃ সিদ্দিক আলী বলে জানা গেছে।
ঢাকা ডিএমপি পুলিশ উত্তরা থানার উপ-পরিদর্শক(এস.আই) হাসান আলী জানান, জুয়েল রানা (২৫) বাঘা উপজেলার চিহৃত ইমো ও বিকাশ হ্যাকার। তার সাথে এ অঞ্চলের আরো অনেকেই সম্পৃক্ত রয়েছে। সে সম্প্রতি একজন সৌদি প্রবাসীর সাথে ইমো প্রতারণার মাধ্যমে ৩৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার সময় তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে এলে সে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। এ সময় তার কাছ থেকে নগদ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।
স্থানীয় লোকজন জানান, রাজশাহীর বাঘায় ইমো-হ্যাকারদের ফাঁদে পড়ে প্রতারিত হচ্ছে মানুষ। একদল সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট ফেসবুকের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে প্রতিনিয়তই প্রতারিত করছেন সাধারণ মানুষকে। বিশেষ করে ফেসবুকে লাইভ ভিডিও সুবিধা চালু হবার পর এই প্রতারনায় এসেছে নতুন মাত্রা।এখন সরাসরি লাইভ ভিডিওতে বিকাশ নেয়ার মাধ্যমে শুরু হচ্ছে ইমো প্রতারণা। এ ছাড়াও হোয়াটস এ্যাপে ফোন সেক্সের আহবান জানানো হচ্ছে, কিন্তু শর্ত হলো একটাই আগে বিকাশ, তবেই মিলবে ইমোর নম্বর, নতুবা নয়। আর এসব অফারে প্রতিনিয়ত বিকাশ করে প্রতারিত হচ্ছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা।
বাঘা থানা সুত্রে জানা গেছে, গত ৬ মাসে এ উপজেলায় আশংকা জনক হারে বেড়েছে ইমো-হ্যাকারদের প্রতারনা। বিশেষ করে সীমান্ত এলাকার গড়গড়ি ও পাকুড়িয়া ইউনিয়নে এর প্রবনতা অন্য যে কোন এলাকার চেয়ে অনেক বেশি। সম্প্রতি বাঘা থানা পুলিশ এসব প্রতারণা চক্রের সাথে সম্পৃক্তদের তালিকা সংগ্র শুরু করেছে। আর এসব তালিকা ধরে থানায় চার মাসে ৩ টি মামলায় রেকড করা হয়েছে। এতে আসামী হয়েছে ১২ জন।এর মধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৮ জনকে। এরা হলো-আলামিন হোসেন,পারভেজ খান,রুবেল হোসেন, পল্লব, মতিন, ডলটন, শফিকুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম। এদের বয়স ১৮ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, উপজেলার চক ছাতারী গ্রামের সিদ্দিক আলীর ছেলে জুয়েল রানার নামে ঢাকা উত্তরা থানায় ইমো প্রতারনার মামলা করেছেন সৌদি প্রবাসী মুন্না। এ মামলায় ডিএমপি পুলিশ তাকে আটক করে ঢাকায় নিয়ে গেছেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *