বাঘায় নবনির্বাচিত পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে যুবলীগ-ছাত্রলীগের অফিস ভাঙচুরের মামলা

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘা পৌর নির্বাচন পরবর্তি যুবলীগ-ছাত্রলীগের অফিস ভাংচুরের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে স্বতন্ত্র বিজয়ী পৌর মেয়র আক্কাছ আলীকে প্রধান আসামী করে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে।
মামলার বাদী কবির হোসেন তার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারী) বিকাল ৫ টার দিকে বাঘা টেলিফোন অফিসের সামনে নবনির্বাচিত পৌর মেয়র আক্কাছ আলীসহ ১৫-২০ জনের একটি দল যুবলীগ-ছাত্রলীগের অফিস ভাংচুর করছে। এ সময় ভাংচুর করতে নিষেধ করায় তারা লোহার রড, পাইপ, চাইনিজ কুড়াল, লাঠি নিয়ে তাড়া করে। আরও উল্লেখ করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী, স্থানীয় সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ছবি ছেড়ে হয়েছে।
এছাড়া অফিসের সামনে রাখা একটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে। এতে ক্ষতি হয়েছে প্রায় দুই লক্ষ টাকা।এই মামলায় ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১৫-২০ জনের অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।
উল্লেখ, ২৯ ডিসেম্বর বাঘা পৌর নির্বাচনের পরের দিন ৩০ ডিসেম্বর পরাজিত নৌকার প্রার্থী শাহিনুর রহমান পিন্টুর সমর্থকদের বাড়িতে হামলা, হুমকি ও বাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে মর্মে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ৫ জন সমর্থককে গেপ্তার করা হয়।
এ বিষয়ে স্বতন্ত্র নবনির্বাচিত মেয়র আক্কাছ আলী বলেন, সহিংসতাকে আড়াল করতে ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচনে আমার কোন নির্বাচনী ক্যাম্প ছিলনা। নির্বাচনী প্রচারনার করতে গিয়ে নৌকার সমর্থকরা প্রতিটি ধাপে ধাপে প্রতিবন্ধকতা করেছেন। কৌশল অবলবম্বন করে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছি। তারা পরাজিত হওয়ার পরে আমার সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছে। তারা নিজেরাই বিভিন্ন স্থানে ভাঙচুর করে আমার ও সমর্থকদের উপর মামলা দিচ্ছে এবং পুলিশকে দিয়ে হয়রানি ও গেপ্তার করানো হচ্ছে। ১২ দিনের ব্যবধানে মিথ্যা দুটি মামলা করা হয়েছে। তবে মামলা দুটিতে জামিন নিয়েছি।
এ বিষয়ে বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন বলেন, যুবলীগ-ছাত্রলীগের অফিস ভাংচুরের বিষয়ে মামলা হয়েছে। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *