পুলিশের ইউনিফর্মের পরিবর্তন আসছে  ট্রায়াল

বাংলাদেশ পুলিশের ইউনিফর্ম পরিবর্তনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইউনিফর্মের মান যাচাইয়ে ইতোমধ্যে ট্রায়ালও শুরু হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েকটি রঙ ও মানের ইউনিফর্মের ট্রায়াল চলছে। ট্রায়ালের মাধ্যমেই চূড়ান্তটি বেছে নেওয়া হবে।
ধারণা করা হচ্ছে, পুলিশের সব ইউনিটের ইউনিফর্মের রঙ একই হবে। তবে আগের এক রঙে থাকছে না পুলিশের ইউনিফর্ম। এক রঙের পরিবর্তে মিশ্র রঙ হতে পারে।
কেন পরিবর্তন করা হচ্ছে পুলিশের ইউনিফর্ম
পুলিশ সদরদফতর সূত্রে জানা যায়, বাহিনীর ইউনিফর্ম পরিবর্তন একটি নিয়মমাফিক কাজ। বেশ কয়েক বছর পরপরই বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনা করে পুলিশের ইউনিফর্মে বিভিন্ন পরিবর্তন আনা হয়। যেমনটি হয়েছিল ২০০৪ সালে এবং ২০০৯ সালে। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মেলানোর জন্যও পরিবর্তন করা হয়। এছাড়া আবহাওয়াগত বিষয় মাথায় রেখেও বাহিনীর পুলিশের ইউনিফর্মে পরিবর্তন করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় পরিবর্তন আনা হচ্ছে।
পুলিশের লজিস্টিক বিভাগ সূত্রে জানা যায়, নতুন ইউনিফর্মে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টিকে জোর দেওয়া হচ্ছে তা হলো কাপড়ের মান। সেক্ষেত্রে উন্নত বিশ্বের ১০-১৫টি দেশের পুলিশের ইউনিফর্ম বিশ্লেষণ করেছে বাংলাদেশ। এসব দেশের পুলিশের কাপড়ের মান বিবেচনায় রেখেই নতুন ইউনিফর্মের মান নির্ধারণ করা হচ্ছে।
পরিকল্পনা অনুযায়ী নতুন ইউনিফর্মেও থাকছে হাফ ও ফুলহাতা শার্টের ব্যবস্থা। এক্ষেত্রে গরমকালে হবে হাফহাতা শার্ট, শীতকালে ফুলহাতা শার্ট। নতুন ইউনিফর্ম একরঙার বদলে হচ্ছে মিশ্র রঙের।
যে কারণে ইউনিফর্মে মিশ্র রঙ
অনেক সময় অপরাধীরা মেট্রোপলিটন ও জেলা পুলিশের ইউনিফর্ম নকল করে পুলিশ পরিচয় দিয়ে নানা অপরাধ করে থাকে। এসব অভিযোগে অনেক অপরাধীকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।
এ সমস্যা এড়ানোর জন্য পুলিশের নতুন ইউনিফর্ম মিশ্র রঙের হতে যাচ্ছে, যাতে কোনো অপরাধী সহজে নকল করতে না পারে। নতুন ইউনিফর্মে এমন কিছু বিশেষত্ব থাকবে যা খুব সহজেই নকল করা যাবে না।
ট্রায়ালে যা হচ্ছে
পুলিশের নতুন ইউনিফর্মের ট্রায়াল মাসব্যাপী চলবে। এরইমধ্যে ট্রায়াল শুরু হয়েছে। ইউনিফর্ম আরামদায়ক কি না তা দেখা হচ্ছে। ডিউটির সময় এটি পরে থাকলে পুলিশ সদস্যদের মধ্যে কোনো অস্বস্তি কাজ করে কি না তাও দেখা হচ্ছে। তাছাড়া পরিবেশের সঙ্গে মানানসই কি না সেটিও খেয়াল রাখা হচ্ছে। পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে নতুন পোশাকের নমুনা পাঠানো হয়েছে ট্রায়ালের জন্য। বিবেচ্য বিষয়গুলো নিশ্চিত হওয়ার পরই চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইউনিফর্ম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *