নৌকা বাইচ এত সুন্দর হবে জানলে একটি টিম গঠন করতাম : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

মোঃ লালন উদ্দীন,বাঘা : রাজশাহী ৬ চারঘাট-বাঘার সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, শত বছরের ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইজ এতো সুন্দর হবে জানলে আমি নিজে একটি টিম গঠন করতাম। শনিবার বিকেলে বাঘার গড়গড়ি ইউনিয়নের পদ্মা নদীতে আয়োজিত নৌকা বাইজ প্রতিযোগিতা শেষে পুরুস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

গড়গড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম (রবি’র) সভাপতিত্বে আয়োজিত দু’দিন ব্যাপী নৌকা বাইজ অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রী বলেন, এ বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে শুনে আমি খুব আনান্দিত হয়েছি।আমি ধন্যবাদ জানায় এই নৌকা বাইজ এর আয়োজক কমিটির নের্তৃবৃন্দকে।আমার সবচেয়ে বেশি ভাল লেগেছে এই নৌকা বাইজ উপলক্ষে এ অঞ্চলের হাজার-হাজার মানুষের উল্লাস ও উৎসবের আমেজ ।

শাহরিয়ার আলম হাজারো মানুষের ঢল দেখে নিজে আপ্লুত হয়ে স্লোগান ধরিয়ে বলেন, প্রতিক কি আছে ? কোনশে প্রতিক, এ সময়  জনতার কন্ঠে উচ্চস্বর ধ্বনি বেজে উঠে নৌকা। তিনি জাতীর জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, এই নৌকা ৭১-এর নৌকা। এই নৌকা স্বাধীনতার নৌকা।

উক্ত নৌকা বাইজ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাবেক বাঘা পৌর মেয়র ও রাজশাহী জেলা আ’লীগের  সদস্য আক্কাছ আলী এবং বাঘা উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল।

উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা, বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন সাজু, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মন্টু, অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, আ’লীগ নেতা মাসুদ রানা তিলু, বাঘা পৌর সভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, গড়গড়ি ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি অধ্যাপক আনিচ্ছুজ্জামান, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু ,বাঘা উপজেলা মহিলা আ’লীগের সভানেত্রী ফাতেমা মাসুদ লতা ও আড়ানী পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি রিবন আহাম্মেদ বাপ্পী-সহ আওয়ামী সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও অত্র অঞ্চলের হাজার-হাজার মানুষ।

মেলা কমিটির সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি বলেন, আজ থেকে ১০ বছর পূর্বে এখানে বড় নদী ছিলো। পরবর্তীতে নদীর রুপ রেখা পরিবর্তন হওয়ায়  মাঝ খানে চর পড়ে। ফলে  নদীর পরিধি সীমা কমে আসে। এতে করে বন্ধ হয়ে যাই আমাদের আদি সাংস্কৃতি নৌকা বাইজ উৎসব। তবে এ বছর জাতীর জনকের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে  নতুন করে নৌকা বাইজ শুরু করলাম। আমি কথা দিচ্ছি , সামনের বছর গুলোতেও এটি ধরে রাখবো এবং উৎসবমুখর পরিবেশ এ মেলা চলবে।

মেলা আয়োজন কমিটি সূত্রে জানা গেছে, শনিবার প্রথম দিনের নৌকা বাইজ প্রতিযোগিতায় ১০ টি (বৈঠা)নৌকা অংশ গ্রহন করে। এর মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে রিন্টুর দল এবং দ্বিতীয়  হয় আলহাজ বুদু মিয়ার দল। উভয় দলকে এলিডি টিভি উপহার তুলে দেন অতিথি বৃন্দৃ ।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *