দুর্গা উৎসব উৎযাপনে বাবা-মাকে নিয়ে গ্রামে এসেছেন নায়িকা মিম

মোঃ লালন উদ্দীন,বাঘা : দুর্গাপূজা বা দুর্গোৎসব হল হিন্দু দেবী দুর্গার পূজাকে কেন্দ্র করে প্রচলিত একটি উৎসব। দুর্গাপূজা সমগ্র হিন্দু সমাজেই প্রচলিত। তবে বাঙালি হিন্দু সমাজে এটি অন্যতম বিশেষ ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব। এই উৎসবকে কেন্দ্র করে নাড়ীর টানে বাবা-মাকে সাথে করে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার নারায়নপুর গ্রামে ছুটে এসছেন এ প্রজন্মের শতাধিক ছবি ও  অসংখ্য নাট্য জগতের আলোচিত নায়িকা বিদ্যাসিনহা মিম ।আর এ খবর শুনে তাঁকে দেখতে আসছেন অসংখ্য ভক্ত এবং এলাকার শত-শত মানুষ।

ঢাকার আলোচিত নাট্যকার ও বাঘার কৃতিসন্তান শিমুল সরকার বলেন, লাইট, ক্যামেরা, অ্যাকশন, কাট, মিটিং এসব নিয়েই সারা বছর ব্যস্ত সময় পার করেন তারকা অভিনয় শিল্পীরা। কিন্তু শারদীয় উৎসব শুরু হলে সবকিছু থেকে বিরতি নিয়ে পূজার উৎসবে মেতে উঠেন সনাতন ধর্মাবলম্বী তারকারা। আমি তাঁদের প্রতি কৃতঙ্গ।কারণ এই সময়টি এলে আমার অনেক ভক্ত ও শুভাকাংখী আমাকে নিমন্ত্রন করেন। তাদের আনান্দ ও উৎসব দেখে আমি নিজেও আনান্দিত হয়।

নায়িকা বিদ্যা সিনহা মিমের মা’  ছবি সাহা  বলেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সকল ধর্মের মানুষকে এক সুতোয় গেঁথে রেখে গেছেন। সে থেকে আমরা বিশ্বাস করি- ধর্ম যার-যার, উৎসব সবার। তিনি বলেন, আমাদের স¤প্রদায়ের এটি সবচেয়ে বড় উৎসব। শত ব্যাস্ততার মাঝেও আমরা এ সময় টিতে নিজ  এলাকা(বাড়ী) আসার চেষ্টা করি। এ সময় বাড়ি এলে ভাই-বোন সহ অনেক আতœীয় স্বজনদের সাথে দেখা হয়। এতে করে আমরা অনেক মজা করি।

তার বাবা অব:প্রাপ্ত  প্রভাষক শ্রী বিরেন্দ্রনাশ সরকার বলেন, প্রতি বছর আশ্বিন-কার্তিক মাসে দুর্গাপূজা করা হয়। আশ্বিন মাসের দুর্গাপূজা শারদীয় দুর্গাপূজা এবং চৈত্র মাসের দুর্গাপূজা বাসন্তী দুর্গাপূজা নামে পরিচিত। শারদীয় দুর্গাপূজার জনপ্রিয়তা বেশি। বাসন্তী দুর্গাপূজা মূলত কয়েকটি পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ। তিনি বলেন,দুর্গাপূজা ভারত, বাংলাদেশ ও নেপাল সহ ভারতীয় উপমহাদেশ ও বিশ্বের একাধিক রাষ্ট্রে পালিত হয়ে থাকে। তবে বাঙালি হিন্দু সমাজের প্রধান ধর্মীয় উৎসব হওয়ার দরুন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরা রাজ্যে ও বাংলাদেশের সকল এলাকায় বিশেষ জাঁকজমকের সঙ্গে দুর্গাপূজা পালিত হয়।

এ বিষয়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত ও সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় নায়িকা বিদ্যা সিনহা মিম তার অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, আমি আমার পেশার প্রতি খুব যতœশীল। তবে আমার গ্রামকে আমি ভিষণ ভালোবাসি। তাই প্রতি বছর দুর্গাউসসবে ছুটে আসি নিজ গ্রামে। এ সময় আমার অনেক ভক্ত এবং গ্রামের লোকজন আমার সাথে দেখা করতে আসে। আমি তাদের সাথে কথা বলেও অনেক আনান্দ পায়। আমি চাই বিধাতা সবাইকে ভালো রাখুক। কল্যান হোকে সকলের।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *