ছয়শো বিঘা জমিতে বোরোচাষ হুমকিতে ফেলে বাগমারায় এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে অবৈধভাবে গভীর নলকূপ স্থাপনের অভিযোগ

আবু বাককার সুজন বাগমারা (রাজশাহী)

রাজশাহীর বাগমারায় বিলসুতিবিলের ছয়শো বিঘা জমিতে বোরোচাষ হুমকিতে ফেলে তিনটি গভীর নলকূপের সীমানার মধ্যে আরো একটি গভীর নলকূপ স্থাপন করেছেন এলাকার এক প্রভাবশালী ব্যক্তি। সরকারি বিধি লংঘন করে অবৈধভাবে এ গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে বলে কৃষকদের পক্ষে সিন্দুরলং মৌজার একটি গভীর নলকূপের অপারেটর শহিদুল ইসলাম বিএমডিএ’র (বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) নির্বাহী পরিচালকের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বাগমারার বড়বিহানালী ইউনিয়নের সিন্দুরলং মৌজার বিলসুতিবিল সংলগ্ন এলাকার কৃষকদের জমিতে সেচের মাধ্যমে বোরোধানসহ বিভিন্ন ফসল চাষের সুবিধার লক্ষে ২০০৫ সালে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে তিনটি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়। এর একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন এবং অপর দুইটি বিএমডিএ (বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) বাগমারা জোনের অধীনে। সম্প্রতি ভূগর্ভস্থ পানির স্তর অস্বাভাবিকভাবে নিচে নেমে যাওয়ায় ওই নিতটি গভীর নলকূপে বর্তমানে পানি সংকট দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় ওই তিনটি গভীর নলকূপের আওতায় ছয়শো বিঘা জমিতে বোরোচাষ হুমকিতে ফেলে কৃষকদের ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে বিএমডিএ বাগমারা জোনের সহকারী প্রকৌশলী সাইফুল ইসলামের যোগসাজশে গুয়াবাড়ী গ্রামের মাহাতাব হোসেন ১৫ বছর পূর্বে স্থাপিত ওই তিনটি গভীর নলকূপের সীমানার মধ্যে আরো একটি গভীর নলকূপ স্থাপন করে বিদ্যুৎ সংযোগের চেষ্টা চালাচ্ছেন। সরকারি বিধি অনুযায়ী পূর্বে স্থাপনকৃত কোনো গভীর নলকূপের নির্ধারিত সীমানার মধ্যে নতুনভাবে কোনো গভীর নলকূপ স্থাপন করা যাবে না। সরকারি এই নিয়ম অমান্য করে কেউ এরিয়ার মধ্যে নতুনভাবে কোনো গভীর নলকূপ স্থাপন করলে তাতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া যাবে না। কিন্তু মাহতাব হোসেন ক্ষমার জোরে সরকারি নিয়মনীতির কোনো তোয়াক্কা না করে অবৈধভাবে আরো একটি গভীর নলকূপ স্থাপন করেছেন। নতুনভাবে স্থাপনকৃত এই গভীর নলকূপ চালু করা হলে নি¤œস্তরে পানি সংকট সৃষ্টি হয়ে পূর্বে স্থাপন করা ওই তিনটি গভীর নলকূপের আওতাধীন ছয়শো বিঘা জমিতে চলতি মওসুমে বোরোচাষ হুমকির মুখে পড়বে এবং এলাকার কৃষকদের চরম ক্ষতি হবে। কাজেই অবৈধভাবে স্থাপনকৃত গভীর নলকূপে বিদ্যুৎ সংযোগ না দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানানো হয়েছে।

তবে মাহতাব হোসেন দাবি করেছেন, তার গভীর নলকূপটি বিএমডিএ বাগমারা জোনের অনুমোতি নিয়ে নিয়ম মেনেই স্থাপন করা হয়েছে।

বিএমডিএ’র (বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) নির্বাহী পরিচালক প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য লোক পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *