গোমস্তাপুরে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন,ওষুধের দোকান বাদে সকল প্রকার দোকান বন্ধ, বিভিন্নজনকে অর্থদন্ড

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:  মহামারী করোনা রোধে তৃতীয় ধাপের লক ডাউনের ১১তম দিনে গোমস্তাপুরে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। সোমবার সকাল থেকে উপজেলা সদরসহ রহনপুর পৌর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টহল লক্ষ্য করা গেছে। লকডাউনে উপজেলার বেশীরভাগ দোকানপাট বন্ধ ছিল। রাস্তাঘাটে যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচল ছিল সীমিত আকারে। তবে গোমস্তাপুর উপজেলার প্রানকেন্দ্র রহনপুরে স্মরণকালের লকডাউন পালিত হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী সাপ্তাহিক রহনপুর হাট বন্ধ ছিল। ওষুধের দোকান ব্যতিত রহনপুরে সমস্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এমনকি মুদিদোকান, কাচাবাজার, মাছ,মাংসের আড়ত একেবারেই বন্ধ ছিল।

এদিকে লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করায় সোমবার দুপুর ২টা পর্যন্ত ৭জনকে ৩ হাজার ৮শ টাকা অর্থদন্ড দেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার নজির।
রহনপুর পৌর এলাকার রহমতপাড়ার বাসিন্দা নুর মোহাম্মদ বলেন,সকালে রহনপুর বাজারে নিত্যপণ্য বাজার করতে গিয়ে তা করতে পারেন নি। তিনি হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে আসেন। তারমত অনেকে বাজার থেকে ফেরত এসেছেন।

রহনপুর  শিল্প ও বনিক সমিতির সভাপতি  সৈয়দ ফারুক হোসন বলেন, মূলতঃ সোমবারের  হাট বন্ধ করতেই প্রশাসনের অনুরোধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ওষুধের দোকান ব্যতিত নিত্য প্রয়োজনীয দোকান বন্দ রাখা হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান বলেন, লকডাউন বাস্তবায়নের অংশ হিসেবেই  এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মানুষ যাতে সচেতন হয় সে দিকেই নজর দিতে হবে সকলকে।
অন্যদিকে একটি সূত্রে জানায়,লকডাউনের দশম দিন রোববার ঘটলো বিপত্তি। সোমবার রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার  ড. হুমায়ন কবীর গোমস্তাপুরে আসবেন তাই  উপজেলা  প্রশাসন রোববার এলাকায় মাইকিং করে  জানিয়ে দেয়, রোববার বিকেল ৩ টা থেকে সোমবার  সারাদিন ঔষুধ দোকান ব্যতীত সবকিছুই বন্ধ থাকবে।

গোমস্তাপুরে দু’জনের দাফন সম্পন্ন
গোমস্তাপুর(চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম টাইগারের মা ফাতেমা বেগম (৮০) ও অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক আলহাজ্ব ফাইজুদ্দিন আহমদ (৭০) এর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এর আগে ফাতেমা বেগম
রোববার রাত ৯.৫০ মিনিটে বার্ধক্যজণিত কারণে গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।  তিনি রহনপুর পৌর এলাকার প্রসাদপুর মহল্লার মৃত মোজাফফরের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৮০)। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে, ৪ মেয়ে, আত্নীস্বজনসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। সোমবার সকাল ১০টায় রহনপুর ইউসুফ আলী সরকারি কলেজ মাঠে মরহুমার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউর রহমান, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, রহনপুর পৌর মেয়র মতিউর রহমান খাঁন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বিশ্বাস, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রাশিদুল ইসলাম প্রমুখ। জানাযা শেষে রহনপুর জালিবাগান কবররস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। অন্যদিকে গোমস্তাপুর ইউনিয়নের বাজারপাড়া নিবাসী অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক আলহাজ্ব ফাইজুদ্দিন আহমদ সোমবার দিনগত রাত আড়াই দিকে ইন্তেকাল করেন। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইলাইহি রাজিউন)। বিকেল ৩টায় তাঁর নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *