আইজিপির সোর্স দাবি করা প্রতারক রাব্বি গ্রেফতার

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: মাদক সেবন মামলায় হাজত থেকে বের হয়ে দামি মোটর সাইকেল কেনা সহ নিজেকে পুলিশের মহা-পরিদর্শক(আইজিপির)সোর্স পরিচয় দিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছিল বাঘার চকনারায়নপুর গ্রামের রাব্বি হাসান। তার নবজাতক সন্তানের নাম আইজিপি স্যার রেখেছেন এমন কথাও বলছেন অনেকের কাছে। আর এসব কথা শুনে এলাকার কিছু ভুক্তভুগী মানুষ পুলিশী তদবির পেতে ছুটছিলেন প্রতারক রাব্বির কাছে। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাতে সেই আলোচিত রাব্বি হাসানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, ৪এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখে বাঘার চকনারায়নপুর গ্রামের আলোচিত রাব্বি সহ চার যুবককে মাদক সেবন করা অবস্থায় উপজেলার খানপুর থেকে হাফ বোতল ফেন্সিডিল, ২ পিচ ইয়াবা এবং দু’টি দামি মোটর সাইকেল সহ তাদের গ্রেফতার করে বাঘা থানা পুলিশ।
এ ঘটনার ১৫ দিন পর হাজত থেকে বেরিয়ে আসে রাব্বি। অত:পর একটি দামি এ্যাপাসি মোটরসাইকেল কিনে পরদিন থেকে এলাকায় দাপিয়ে বেড়াতে শুরু করে সে। বর্তমানে অনেকের কাছে রাব্বি বলে বেড়াচ্ছিল, বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি, রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এবং চারঘাট সার্কেলের এএসপির সাথে তার ঘনিষ্ঠতা রয়েছে।
বাঘার খানপুর গ্রামের বাসিন্দা ও সাবেক রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু এবং গড়গড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম (রবি) বলেন, তাঁদের এলাকা থেকে গত ৪ তারিখ যে চার জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছিল তারা প্রত্যেকেই মাদক সেবনকারি ও ব্যবসায়ী এবং ইমো ও বিকাশ হ্যাকার হিসাবে পরিচিত। আমরা শুনেছি, তাদের ৪ জনের কাছে ৮ টি স্মার্ট ফোন ছিল। কিন্তু রহস্য জনক কারনে সেই ফোন গুলো জব্দ করেনি পুলিশ। অথচ এদের কারনে প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ এবং ধ্বংস হচ্ছে এলাকার যুব সমাজ।
স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, রাব্বির বাবা একজন ডে-লেবার। অথচ তার সন্তান দামি মোটর সাইকেল এবং দামি স্মার্ট ফোন নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। বর্তমানে বাঘা থানায় নম্বর বিহীন তার যে মোটর সাইকেলটি জব্দ রয়েছে সেটির কাগজপত্র সঠিক আছে কি না তারও সন্দেহ রয়েছে। তার অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকার সাধারণ জনগন। সে মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার নামে অন্য এলাকা থেকে বাঘা সীমান্ত এলাকায় ঘুরতে আসা অনেক মানুষকে জিম্মি করে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়। আর তার এসব অপকর্মের সংবাদ পত্রিকায় ছাপালে সে সাংবাদিকের নামে মিথ্যা-অসত্য কথা ফেসবুকে লিখে মানক্ষুণ্য করে। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তার নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে পুলিশ তাকে ওই রাতে নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে।
বাঘা থানার পুলিশ সূত্র জানায়, রাব্বির নামে মাদক, নারী নির্যাতন এবং চাঁদাবাজি সহ জেলার বিভিন্ন থানায় ৭ টি মামলা রয়েছে। সে নিজেকে পুলিশের সোর্স দাবি করে এবং এ কথাও বলে যে, পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে তার সুখ্যাতি রয়েছে। তার এসব কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছে ১০-১২ জন সাঙ্গ-পাঙ্গ। তার বিরুদ্ধে কোন পুলিশ কর্মকর্তা তদন্ত কিংবা আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করার উদ্যোগ নিলে তিনি সেই অফিসারের বিরুদ্ধে পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ দিয়ে তাঁকে হয়রানি করেন।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, রাব্বি হাসানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়ে তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার ব্যবহৃত মোবাইল জব্দ রয়েছে থানায়। সেই মোবাইলে তার প্রতারণার বিষয় গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। #

মোঃ লালন উদ্দীন
বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি
তাং ৩০-০৪-২০২১
মোবাইল নং ০১৭১৩-৭০৭৪৪৩

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *